ডাকযোগে আসছে নতুন মাদক এনপিএস

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

নতুন মাদক এনপিএস

গ্রিন টি হিসেবে ডাকযোগে আমদানি হচ্ছে নতুন মাদক নিউ সাইকোট্রফিক সাবসটেনসেস-এনপিএস। যা খাট নামেও পরিচিত। সম্প্রতি বেশ কয়েকটি চালান ধরা পড়ার পর আলোচনায় এসেছে এনপিএস। সর্বশেষ ৯ সেপ্টেম্বর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের জিপিও বৈদেশিক পার্সেল শাখা থেকে ১৬০০ কেজি নতুন এনপিএস জব্দ করে সিআইডি। এর বাজার মূল্য আনুমানিক ২ কোটি ৩৭ লাখ ৯৫ হাজার ৪০০ টাকা।

মঙ্গলবার রাজধানীর মালিবাগ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডির ডিআইজি মো. শাহ আলম বলেন, ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন কৌশলে দেশে মাদক নিয়ে আসছে। অভিযানে শাহজালাল বিমানবন্দরের জিপিওর বৈদেশিক পার্সেল শাখা থেকে মাদকের চালান আটক করা হয়। ২০টি ঠিকানায় ‘গ্রিন টি’ নামে এনপিএস আনা হয়েছিল।

তিনি বলেন, যে ঠিকানা দেয়া হয়েছে সেগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। যেহেতু এগুলো পোস্ট অফিসের মাধ্যমে এসেছে, কোনো বহনকারী নেই। তবে সেসব ঠিকানার ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ১০ সেপ্টেম্বর পল্টন থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। ডিআইজি শাহ আলম আরও বলেন, মাত্র মামলাটি রুজু করা হয়েছে। এটি প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে। আশা করছি তদন্তে এর সঙ্গে জড়িত দেশি-বিদেশি চক্রটিকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হব। যে ঠিকানাগুলো দেয়া হয়েছে সেগুলো সঠিক কিনা তা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তবে যারাই জড়িত থাকবে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

এর আগেও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর এবং কাস্টমস এনপিএস জব্দ করে।

সেই মামলাগুলো সিআইডি দেখবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রয়োজনে গোয়েন্দা তথ্য আদান-প্রদান করে কাজ করা হবে। এনপিএস মাদক পানিতে গুলিয়ে অথবা চিবিয়ে সেবনের পাশাপাশি ইয়াবার কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় বলে ধারণা সিআইডির। মামলা তদন্তের বিষয়ে ডিআইজি শাহ আলম বলেন, মাত্র মামলাটি হয়েছে। তদন্তে জড়িত দেশি-বিদেশি চক্রকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে পারব।