৩৪ দিনে ২৭৭ জনের প্রাণহানি

বিভিন্ন স্থানে সড়কে নিহত ১৩ জন

  যুগান্তর ডেস্ক ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সড়ক দুর্ঘটনা

সড়ক দুর্ঘটনায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীর বাড্ডায় এক, সাভারে এক, কিশোরগঞ্জে তিন, চট্টগ্রামে তিন, ফরিদপুরের ভাঙ্গায় দুই, ঝিনাইদহের মহেশপুরে এক, শেরপুরে এক ও গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে একজন। এ ছাড়া রাঙ্গামাটিতে ট্রাকচাপায় আহত হয়েছেন অটোরিকশার পাঁচ যাত্রী। এ নিয়ে গত ৩৪ দিনে সড়কে নিহত হয়েছেন ২৭৭ জন। স্টাফ রিপোর্টার, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বাড্ডা : রাজধানীর বাড্ডার লিংক রোডে বাসের ধাক্কায় নিহত যুবকের নাম নাসির উদ্দিন টিটু (৩০)। পুলিশ ঘাতক বাস ও চালককে আটক করেছে। রোববার সকালে নারিকেলের ছোবড়া (খোসা) বোঝাই একটি ভ্যানের ওপর বসে ছিলেন টিটু। ভ্যানটি বাড্ডা লিংক রোড দিয়ে যাওয়ার সময় ড্রিমলাইন পরিবহনের একটি বাস পেছন থেকে ধাক্কা দেয়।

এ সময় টিটু ভ্যান থেকে ছিটকে পড়ে ওই বাসের নিচে চাপা পড়েন। পরে ঢামেক হাসপাতালে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ বাসটি (ঢাকা-মেট্রো-ব-১৪-১৪৪২) জব্দ ও চালক-হেলপারকে আটক করেছে।

সাভার : ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের হেমায়েতপুরে জাদুরচর এলাকায় ট্রাকচাপায় এক সিএনজিচালক নিহত হয়েছেন। একটি দ্রুতগতির ট্রাক সিএনজিকে চাপা দিলে চালক সিএনজির ভেতরে আটকে মারা যান।

পরে সিএনজি কেটে তার লাশ বের করা হয়। পুলিশ তার পরিচয় জানাতে পারেনি। অপরদিকে সাভারে ট্রাকচাপায় হাসিনা বেগম নামে এক নারী গার্মেন্টকর্মীর দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

রোববার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উলাইল বাসস্ট্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ডাউকিয়া এলাকায় যাত্রীবাহী বাসের চাপায় শিশুসহ মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হয়েছেন। রোববার কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ মহাসড়কের কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ডাউকিয়া নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন : নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার গকডা মধুপুর গ্রামের হাদিস মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩০), একই এলাকার আফসু মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া (৫৫) ও তার শিশুপুত্র শাহরিয়ার (৫)। কিশোরগঞ্জ থেকে তারা মোটরসাইকেলে কেন্দুয়ায় যাচ্ছিলেন।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসের চাপায় নিহত হয়েছেন ফারদিন আহমেদ নামে এক কলেজছাত্র (১৮) ও অটোরিকশা চালক মো. হানিফ। ফারদিন নগরীর সেন্ট প্ল্যাসিডস স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। তাদের বাসা জিইসি মোড়ের বাটাগলি এলাকায়।

আর হানিফ হালিশহরের ব্রিকফিল্ড এলাকার মো. মোস্তফার ছেলে। শনিবার রাত ১২টার দিকে নগরীর পাঁচলাইশ থানার পাশে কিং অব কমিউনিটি সেন্টারের নিচে মাইক্রোবাসের নিচে চাপা পড়েন তারা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেই তাদের মৃত্যু হয়। এ ছাড়া কোতোয়ালি থানার রেলওয়ে অফিসার্স ক্লাব এলাকায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী কলেজছাত্র আলমগীর হোসেন রিয়াদ (২৬) নিহত হয়েছে।

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) : ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা বিশ্বরোডের ভাঙ্গার বামনকান্দা নামক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দু’জন হলেন হেলপার অহিদুল ইসলাম (২৩) ও মো. নজরুল ইসলাম। শনিবার রাতে খুলনাগামী ফাল্গুনী পরিবহন পাথর ভর্তি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) : মহেশপুরে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত স্কুলছাত্রের নাম রেজওয়ান (১৩)। রোববার সকালে উপজেলার ভৈরবা বাজারের মুড়োতলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। রেজওয়ান কাজিরবের ইউপির ডালভাঙা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। জানা যায়, ভৈরবা বাজারের মুড়োতলা নামক স্থানে দাঁড়িয়ে ছিল রেজওয়ান। বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। ট্রাকটি জব্দ করেছে পুলিশ।

মুকসুদপুর (গোপালগঞ্জ) : মুকসুদপুরে নানাবাড়ি বেড়াতে এসে বাসের ধাক্কায় নিহত হল শিশু পাপ্পি দাস (৬)। রোববার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কদমপুর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পাপ্পি দাস ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার তালমা মহিলা রোড এলাকার শ্রীবাস দাসের মেয়ে। ঢাকাগামী একটি যাত্রীবাহী বাস ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই শিশুটি নিহত হয়। সে খাবার কেনার জন্য রাস্তা পার হচ্ছিল।

বগুড়া : শেরপুরের বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে ঘোগা বটতলা এলাকায় রোববার সকালে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তির নাম নীলবদন (৫০)। রোববার সকালে ঢাকাগামী একটি ট্রাকের চাকা ফেটে যায়। এ সময় বগুড়াগামী একটি কাভার্ড ভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকে ধাক্কা দেয়।

একই সময় বগুড়াগামী একটি অটোরিকশা দুর্ঘটনাকবলিত দুটি যানের পাশ দিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তালগাছে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়। নীলবদনকে হাসপাতালে নিলে তার মৃত্যু হয়।

রাঙ্গামাটি : রাঙ্গামাটিতে ট্রাকচাপায় গুরুতর আহত হয়েছেন অটোরিকশার পাঁচ যাত্রী। অটোরিকশার চালক নিখোঁজ রয়েছেন। রোববার সকালে শিমুলতলী নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন : উজ্জ্বল দত্ত, দিলুয়ারা বেগম, তাহমিনা আক্তার, আবদুল বাতেন ও আবদুল মালেক। এদের মধ্যে উজ্জ্বল, দিলুয়ারা ও তাহমিনাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ট্রাকের চালক পলাতক।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×