জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের হালচাল

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

প্রতিবছর দেশের বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। তাদের প্রায় সবাই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে চান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অনেকেই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারেন না। পরে তাদের অনেকেই বেছে নেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। অনেক ভালো ভালো শিক্ষার্থী বড় স্বপ্ন নিয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হন। তারা যে আকাক্সক্ষা নিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন, শেষ পর্যন্ত খুব কমসংখ্যক শিক্ষার্থীই সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হন। এর পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। যেমন- ক্লাসরুমের সংকট, চাহিদা অনুযায়ী শিক্ষকের অভাব, স্বতন্ত্র পরীক্ষার হল না থাকা, গবেষণা কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রের অভাব ইত্যাদি।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিদিন নিয়মিত ক্লাস হয়। ক্লাসের পরে নিয়মিত গ্রুপ স্টাডি হয়। প্রতিদিন ক্লাসে যাওয়া-আসার ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে যেমন বন্ধুসুলভ সম্পর্ক গড়ে ওঠে তেমনি শিক্ষকদের সঙ্গেও তাদের একটা সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গেও তাদের সম্পর্ক তৈরি হয়। এসব ক্ষেত্রে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী পিছিয়ে পড়েন। কিন্তু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যদি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো সুযোগ-সুবিধা পেতেন, তাহলে শিক্ষাজীবনে বৈষম্য সৃষ্টি হতো না।

সহপাঠীদের সঙ্গে সামাজিক, রাজনৈতিক ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে আলোচনা করলে মনও প্রফুল্ল থাকে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী একপর্যায়ে নানারকম কাজে যুক্ত হওয়ার ফলে তাদের উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন হয় না। এ প্রেক্ষাপটে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যমান বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া দরকার। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যমান বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করা হলে শিক্ষার্থীরা তাদের দক্ষতা দেখাতে সক্ষম হবেন।

মো. বেলাল হোসেন শিক্ষার্থী, ঢাকা কলেজ