নদী দূষণ রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নিন

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৮ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের প্রধান নদ-নদীগুলো ভয়াবহ দূষণের শিকার হয়েছে। শুষ্ক মৌসুমে কয়েক মাস রাজধানীর চারপাশের বিভিন্ন নদীর পানি এতটাই দূষিত হয়ে পড়ে যে, তখন এ পানিতে মাছ ও অন্যান্য প্রাণীর জীবন ধারণ কঠিন হয়ে পড়ে। এই দূষিত পানির মাছ মানবস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। এসব নদীর পানি কৃষিকাজে ব্যবহারও ঝুঁকিপূর্ণ। অভিযোগ রয়েছে, বিভিন্ন শিল্পকারখানার বর্জ্য পরিশোধন না করেই নদীতে ফেলা হয়। প্রশ্ন হল, যারা এ কাজটি করছেন তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না কেন? এসব বিষয়ে কর্তৃপক্ষ কঠোর না হলে অনিয়ম আরও বাড়বে, এটাই স্বাভাবিক। জানা গেছে, প্রতিদিন রাজধানীর চারপাশের নদীগুলোতে বিপুল পরিমাণ বর্জ্য ফেলা হচ্ছে। দ্রুত শিল্পায়নের অনুষঙ্গ হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে নদ-নদীগুলো দূষণের শিকার হচ্ছে। মাত্রাতিরিক্ত সার, কীটনাশক ছাড়াও গৃহস্থালি বর্জ্যরে মাধ্যমেও নদীগুলো দূষিত হচ্ছে। দেশের নদ-নদীগুলো দূষণের শিকার হলে বিভিন্ন দূষিত পদার্থ আমাদের খাদ্যচক্রেও প্রবেশ করবে।

নদী দূষণ রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া না হলে দেশের প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হলে জনদুর্ভোগ বাড়তে থাকবে। কারখানায় বর্জ্য পরিশোধন যন্ত্র সংযুক্ত করা হলেও অনেকে কর্তৃপক্ষের চোখ ফাঁকি দিয়ে বেশিরভাগ সময়ই নাকি তা বন্ধ রাখে। যারা এ ধরনের প্রতারণার আশ্রয় নেয় তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া দরকার। দেশে নতুন নতুন শিল্পকারখানা হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু শিল্পকারখানার কারণে যাতে দেশের প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট না হয় সেদিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে।

আবদুর রহিম

মিরপুর, ঢাকা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×