নতুন হুকুম

  জাবেদ আখতার ৩১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অনুবাদ হাইকেল হাশমী

কেউ হুকুম দিয়েছে

বাতাস বইবার আগে জানাবে

কোন দিশায় সে যাবে

বাতাসকে আরো জানাতে হবে

বইবার সময় তার গতি কী হবে,

ঝড় তোলার নেই কোন অধিকার

এই যে বালির দেয়াল

এই যে কাগজে তৈরি হচ্ছে প্রাসাদ

তা রক্ষা করা আমাদের প্রতিজ্ঞা

আর ঝড়ের হলো তাদের সাথে পুরানো শত্রুতা।

কেউ দিয়েছে হুকুম

নদীর ঢেউ

ছেড়ে দিক অবাধ্যতা

নিজ সীমার মধ্যে থাকুক

এই যে ভেসে ওঠা

এই যে ডুবে যাওয়া

এই যে ভাসা আর ডোবা

মোটেও এটা ঠিক না

এইগুলো হল উন্মাদনার লক্ষণ

এইগুলো হল বিদ্রোহের লক্ষণ

বিদ্রোহ তো করা হবে না সহ্য

উন্মাদনা করা হবে না সহ্য

যদি ঢেউগুলো চায় নদীতে থাকতে

তাকে বইতে হবে ধীর, স্থির, শান্ত হয়ে।

কেউ দিয়েছে হুকুম যে এই বাগানে

থাকবে ফুল শুধু এক রঙের,

কিছু আমলা নেবে এই সিদ্ধান্ত-

ভবিষ্যৎ বাগান কেমন হবে,

অবশ্যই ফুল হবে এক রঙের

কিন্তু ফুলের রঙ

হবে কতো গাঢ় অথবা হালকা

সে সিদ্ধান্ত নিবে সেই আমলা।

কাকে কে কীভাবে বোঝাবে

কোনো বাগানে

শুধু এক রঙের ফুল ফোটে না

কোনো দিন এটা হতেই পারে না,

একটি রঙের মাঝে

লুকিয়ে থাকে শত রঙ,

যারা বাগান এক রঙের চেয়েছে

এখন তাদের দেখো

যখন এক রঙের ভিতর

সহস্র রঙ উঠেছে ভেসে

এখন তারা কতো চিন্তিত

তারা কতো যে বিরক্ত।

কাকে কে কীভাবে বোঝাবে

বাতাস আর ঢেউ

কোনো দিন কী শুনেছে কারো হুকুম,

বাতাস- ক্ষমতাবানদের মুঠোয়ে

হাতকড়ায় আর বন্দিশালায়

থাকে না রুদ্ধ,

এই ঢেউগুলো

যদি তাদেরকে দেয়া হয় বাধা

নদী যতই হোক না শান্ত

হয়ে উঠে ফুলে ফেঁপে অশান্ত

আর এই অশান্তির পরিণাম

হয় শুধু বন্যা ও মহাপ্লাবন

কে কাকে এটা কীভাবে বোঝাবে?

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter