বাজার মনিটরিং জোরদার করুন
jugantor
বাজার মনিটরিং জোরদার করুন

  কাজী ফারহানা ইসলাম  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাজারে দফায় দফায় বেড়ে চলেছে নিত্যপণ্যের দাম। যেখানে গত সপ্তাহে কাঁচামরিচের দাম ছিল কেজিপ্রতি ৪০ টাকা, সেখানে এক সপ্তাহে এর দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০-৯০ টাকায়। শুধু কাঁচামরিচের দাম নয়, বেড়েছে পেঁয়াজ, মাছ-মাংস, তেল, চিনি, ডিম ও এলপিজি গ্যাসের দামও। বাজারের ওপর কর্তৃপক্ষের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই বললেই চলে। ফলে নিত্যপণ্যের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। বাড়ছে তাদের দুর্ভোগ।

প্রাণঘাতী করোনার প্রভাব পড়েছে সাধারণ মানুষের আয়ের ওপর। এ অবস্থায় পণ্যের দামবৃদ্ধির কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মধ্য ও নিম্ন আয়ের মানুষ। রোজকার চাহিদা পূরণ করতে তাদের গুনতে হচ্ছে বাড়তি অর্থ। অধিক দামে পণ্য ক্রয়ের ক্ষমতা দেশের অধিকাংশ মানুষের নেই। ফলে বাধ্য হয়ে কমাতে হচ্ছে তাদের দৈনন্দিন বাজার খরচ। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে কমে যাচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রার মান। একদল অসাধু ব্যবসায়ী বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যের দাম বাড়িয়ে চলেছে। এই অসাধু ব্যবসায়ীরা সুযোগ পেলেই পণ্য মজুত করে রেখে বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে। পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পেলে তারা এর দাম বাড়িয়ে এবং অল্প অল্প করে মজুত পণ্য বাজারে ছেড়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়। তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।

এ অবস্থায় আমরা মনে করি, এখনই উচিত পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া। সঠিক বাজার ব্যবস্থাপনা ও নীতিমালা নির্ধারণ করে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনতে হবে, যাতে তারা তাদের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হয়। সেই সঙ্গে পণ্যের চাহিদা ও জোগানের মধ্যে ভারসাম্য সৃষ্টি করতে হবে। দেশে কৃষি ও শিল্পজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির চেষ্টা করতে হবে। বিশেষ করে কৃষকদের চাষাবাদে আগ্রহী করতে হবে। কৃষকদের কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে। বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। তাছাড়া যোগাযোগ ও পরিবহণ ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে হবে। যারা বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করছে, তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে, যাতে অসাধু ব্যবসায়ীদের মনে ভীতির সঞ্চার হয়। সর্বোপরি দ্রব্যমূল্য যাতে সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে থাকে, সেই বিষয়টি সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে।

কাজী ফারহানা ইসলাম : শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

kfislam29@gmail.com

বাজার মনিটরিং জোরদার করুন

 কাজী ফারহানা ইসলাম 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাজারে দফায় দফায় বেড়ে চলেছে নিত্যপণ্যের দাম। যেখানে গত সপ্তাহে কাঁচামরিচের দাম ছিল কেজিপ্রতি ৪০ টাকা, সেখানে এক সপ্তাহে এর দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০-৯০ টাকায়। শুধু কাঁচামরিচের দাম নয়, বেড়েছে পেঁয়াজ, মাছ-মাংস, তেল, চিনি, ডিম ও এলপিজি গ্যাসের দামও। বাজারের ওপর কর্তৃপক্ষের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই বললেই চলে। ফলে নিত্যপণ্যের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। বাড়ছে তাদের দুর্ভোগ।

প্রাণঘাতী করোনার প্রভাব পড়েছে সাধারণ মানুষের আয়ের ওপর। এ অবস্থায় পণ্যের দামবৃদ্ধির কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মধ্য ও নিম্ন আয়ের মানুষ। রোজকার চাহিদা পূরণ করতে তাদের গুনতে হচ্ছে বাড়তি অর্থ। অধিক দামে পণ্য ক্রয়ের ক্ষমতা দেশের অধিকাংশ মানুষের নেই। ফলে বাধ্য হয়ে কমাতে হচ্ছে তাদের দৈনন্দিন বাজার খরচ। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে কমে যাচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রার মান। একদল অসাধু ব্যবসায়ী বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যের দাম বাড়িয়ে চলেছে। এই অসাধু ব্যবসায়ীরা সুযোগ পেলেই পণ্য মজুত করে রেখে বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে। পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধি পেলে তারা এর দাম বাড়িয়ে এবং অল্প অল্প করে মজুত পণ্য বাজারে ছেড়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়। তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।

এ অবস্থায় আমরা মনে করি, এখনই উচিত পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া। সঠিক বাজার ব্যবস্থাপনা ও নীতিমালা নির্ধারণ করে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনতে হবে, যাতে তারা তাদের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হয়। সেই সঙ্গে পণ্যের চাহিদা ও জোগানের মধ্যে ভারসাম্য সৃষ্টি করতে হবে। দেশে কৃষি ও শিল্পজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির চেষ্টা করতে হবে। বিশেষ করে কৃষকদের চাষাবাদে আগ্রহী করতে হবে। কৃষকদের কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে। বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। তাছাড়া যোগাযোগ ও পরিবহণ ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে হবে। যারা বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করছে, তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে, যাতে অসাধু ব্যবসায়ীদের মনে ভীতির সঞ্চার হয়। সর্বোপরি দ্রব্যমূল্য যাতে সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে থাকে, সেই বিষয়টি সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে।

কাজী ফারহানা ইসলাম : শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

kfislam29@gmail.com

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন