শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধায় দোহার-নবাবগঞ্জ

জনগণের যাতে ভোগান্তি না হয় খেয়াল রাখুন

-অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি

প্রকাশ : ০২ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট, নবাবগঞ্জ

প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে নবাবগঞ্জকে শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা হিসেবে উদ্বোধন করার পর স্থানীয়ভাবে মোনাজাত করেন সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি -যুগান্তর

নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় এসেছে। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করেন।

এ উপলক্ষে বেলা ১১টায় নবাবগঞ্জ উপজেলা মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি। অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলা শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসায় আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে স্থানীয়রা সেই সুবিধা ভোগ করবে।

তবে তিনি সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, জনগণ যাতে ভোগান্তির শিকার না হয়। প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার নতুন বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও ১০২টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ হলরুমে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয় আলোচনা সভার আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে সালমা ইসলাম এমপি বলেন, এ অঞ্চলের সর্বস্তরের মানুষকে বিদ্যুৎ সেবার আওতায় আনার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’ স্লোগানের সার্থক রূপায়নের মধ্য দিয়ে শতভাগ বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়েছে। সাধারণ মানুষ যাতে ভোগান্তির শিকার না হয় সে বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে।
 
সাবেক প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোহার-নবাবগঞ্জ আজ ধন্য। দীর্ঘ দিনের অবহেলিত এ অঞ্চল আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এখন এলাকার প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুতের আলো পৌঁছে গেছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নমুখী রাজনীতির আলোয় এ এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও জাতীয়করণ করা হয়েছে। বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে নতুন ভবন নির্মাণসহ মালটিমিডিয়া শ্রেণী কক্ষের সূচনা করা হয়েছে- যাতে শিক্ষার্থীরা অনলাইন ও অফলাইনে তাদের পাঠ্যক্রম চালিয়ে যেতে পারে।

পদ্মাবাঁধসহ বিভিন্ন নদীতে সেতু নির্মাণের ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন হয়েছে। নির্বাচন এগিয়ে আসায় এখন অনেকেই আসবে ভোটের জন্য। আপনাদের সবাইকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কারা দোহার ও নবাবগঞ্জের উন্নয়নের অংশীদার, আর কারা বসন্তের কোকিল তা জেনে নিন। আমি বিগত সময়ের মতো আগামী দিনেও যে কোনো উন্নয়নে আপনাদের পাশে থাকতে চাই। দোহার ও নবাবগঞ্জের সার্বিক কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই।

এ সময় নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন, ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জিএম অসীম কুমার দাস, নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল, ঢাকা জেলা জাতীয় পার্টি যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল উদ্দিন, প্রকৌশলী মো. শাজাহান, প্রকল্প কর্মকর্তা হাবিবুল্লাহ মিয়া, অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান হাজী ইব্রাহীম খলিল, হিল্লল মিয়া, রিপন মোল্লা, পল্লী বিদ্যুতের এজিএম মো. মমিনুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির নেতা আনোয়ার হোসেন মোড়ল, মো. খলিলুর রহমান, জাহাঙ্গীর চোকদার, মো. রফিক তালুকদার, এমএ মজিদ, যুব সংহতির মোস্তারিন মিথুন, বোরহান উদ্দিন, জামাল মোল্লা, শের আলী মাতবর, লাবলু দেওয়ান, হেমায়েত হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক পার্টির এসএম সেলিম, মো. ফায়সাল, মো. তুহিন হোসেন, শ্রীকৃষ্ণ সাহা, আজিজুর রহমান, সাগর, ছাত্র সমাজের খলিল দেওয়ান, পনির মণ্ডল ও মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।