ফেসবুক স্ট্যাটাসে প্রেমের দ্বন্দ্ব

ফরিদপুরে কলেজছাত্র খুন বন্ধুকে কুপিয়ে আহত

  ফরিদপুর ব্যুরো ০২ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফরিদপুর শহরে প্রেমের দ্বন্দ্ব নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে কাজী মুনসিরাতুল রহমান ওরফে আলিফ (১৮) নামে এক কলেজছাত্র খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় কুপিয়ে আহত করা হয়েছে আলিফের আরেক বন্ধুকে। কলেজছাত্র খুনের ঘটনা নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। পৃথক ঘটনায় ফরিদপুরের মধুখালীতে প্রেমিককে না পেয়ে সাবেরা খাতুন (১৪) নামের এক প্রেমিকা আত্মহত্যা করেছে।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আলিফের সহপাঠী সাধন কীর্তনিয়া জানান, আলিফের সঙ্গে শহরের সরকারি সারদা সুন্দরী মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু রাজেন্দ্র কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র আবির নামে আরেক তরুণের সঙ্গে ওই ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ফেসবুকে পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে আলিফ আর আবিরের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। বুধবার সন্ধ্যায় এ দ্বন্দ্বের মীমাংসা করার কথা বলে আলিফকে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের শহর ক্যাম্পাসে ডেকে পাঠায় আবির। সন্ধ্যায় আলিফ ও সাধন রিকশাযোগে রাজেন্দ্র কলেজ এলাকায় গেলে আবির ও তার সহযোগীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আলিফ ও সাধনকে এলোপাতাড়ি কোপায়। স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় দু’জনেকে প্রথমে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে এবং পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আলিফের অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকায় নেয়ার পথে সাভার এলাকায় এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আলিফ মারা যায়।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম নাসিম জানান, এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আবির ও সাধনকে পুলিশ হাসপাতালে নজরদারিতে রেখেছে। এ ব্যাপারে মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আলিফের এক বন্ধু বলেন, আলিফের সঙ্গে মেয়েটির সম্পর্ক ছিল। এর আগে থেকেই আবিরের সঙ্গেও মেয়েটির সম্পর্ক ছিল। মেয়েটির দ্বিমুখী সম্পর্কের জেরে আলিফ ও আবিরের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। দু’জনই ফেসবুকে তাদের প্রেমিকাকে নিয়ে স্ট্যাটাস দেয়। স্ট্যাটাসের সূত্র ধরেই আলিফকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিত হামলা চালিয়ে খুন করে আবির ও তার সহযোগীরা। নিহত কলেজছাত্র আলিফের বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার হাসামদিয়া গ্রামে। আলিফ ফরিদপুর ইয়াসিন কলেজের এইচএসসির ছাত্র। তার বাবার নাম দিপু। সে সোনালী ব্যাংক ময়েনদিয়া ব্রাঞ্চের কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে নিহত আলিফের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে পরিবারের কেউ কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

অপর ঘটনায় ফরিদপুরের মধুখালীর পৌরসভার গোন্ধারদিয়া এলাকায় বুধবার সন্ধ্যায় প্রেমিককে না পেয়ে আত্মহত্যা করেছেন প্রেমিকা সাবেরা খাতুন। তিনি শামছুল মোল্লার মেয়ে। নিহতের ভাই আশিক জানান, আমরা সন্ধ্যার দিকে কেউ বাড়ি ছিলাম না। পরে বাড়িতে এসে দেখি আমার বোন ঘরের ভেতর আড়ার সঙ্গে তার দেহ ঝুলছে। তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বাড়ির পাশে রিহান নামে এক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। রিহানের পরিবার এটা মেনে নিতে পারছিল না। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×