সুষ্ঠু নির্বাচন দিলেই সংলাপের বিজয় হবে : বি. চৌধুরী

যুক্তফ্রন্টে যোগ দিল চার দল

  যুগান্তর রিপোর্ট ০২ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বি. চৌধুরী

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন দিলেই এ সংলাপের বিজয় হবে। সংলাপ ছাড়া চলমান রাজনৈতিক সংকটের সমাধান হবে না। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার বিকালে এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

‘যুক্তফ্রন্ট সম্প্রসারণ ও বিকল্পধারায় যোগদান’ শীর্ষক ওই অনুষ্ঠানে বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টে যোগ দেয় চারটি দল। এগুলো হল- জেবেল রহমান গাণির বাংলাদেশ ন্যাপ, খন্দকার গোলাম মোর্ত্তুজার এনডিপি, লেবার পার্টির একাংশ ও সাবেক মন্ত্রী নাজিম উদ্দিন আল আজাদের বিএলডিপি। এর মধ্যে বাংলাদেশ ন্যাপ ও লেবার পার্টির একাংশ ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে ছিল।

এদিকে আজ সন্ধ্যা ৭টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সংলাপে বসবে বিকল্পধারা বাংলাদেশ।

যোগদান অনুষ্ঠানে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংলাপে আমাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, এটা বিকল্পধারার একটি বড় বিজয়। তারা (ক্ষমতাসীনরা) বলেছিলেন সংলাপ করবেন না। আমরা বলেছিলাম করতে হবে। আমরা দেশের স্বার্থ, মানুষের কথা মাথায় রেখে কথা বলব। আমরা জনগণের কাছে পৌঁছে যেতে চাই।

সংলাপে তাদের দাবি প্রসঙ্গে বিকল্পধারা সভাপতি বলেন- আমাদের দাবি, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন। সংসদ ভেঙে দেয়া। সংসদ সদস্য হিসেবে কারও কোনো ক্ষমতা থাকতে পারে না। নির্বাচন কমিশনকে নিরপেক্ষ করতে হবে। ইভিএম ব্যবহার করতে দেয়া হবে না। নির্বাচন পর্যবেক্ষক আনতে হলে তাদের ১ মাস আগেই আসার সুযোগ দিতে হবে। যে কোনো কেন্দ্র পরিদর্শন করার সুযোগ দিতে হবে। তিনি বলেন, নির্বাচনের সময় ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ সেনাবাহিনীকে নিয়োগ দিতে হবে। আমাদের সেনাবাহিনী সারা বিশ্বে শান্তি রক্ষা করছে। দেশের শান্তির জন্য কেন কাজ করবে না? সামরিক বাহিনীর কোনো বিকল্প নেই। নির্বাচনের সময় সমাবেশ করতে দিতে হবে। সমাবেশ করার ক্ষেত্রে কোনো বিধি-নিষেধ থাকতে পারে না।

সাবেক এ রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, আটকদের মুক্ত করে দিতে হবে। সরকারি চাকরিজীবীদের বড় অংশ আওয়ামী লীগের দলীয় এজেন্টে পরিণত হয়েছে, তাদের নির্বাচনের কাজে যুক্ত করা যাবে না। এ বিষয়গুলো আমরা সংলাপে আলোচনা করব।

দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে পারলে প্রবৃদ্ধি আজ ১০ শতাংশ হতো দাবি করে সরকারকে উদ্দেশ করে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, উন্নয়ন যা করেছেন তার ৫০ শতাংশ দুর্নীতি হয়েছে। আর সরকার উন্নয়নের বাহাদুরি করছে। উন্নয়ন ও গণতন্ত্র একসঙ্গে চলতে হবে। উন্নয়ন হবে গণতন্ত্র থাকবে না, এটা মানুষ চায় না। ডিজিটাল আইন করা হয়েছে, যাতে সাংবাদিকদের মুখ বেঁধে দেয়া হয়েছে। এ আইন বাতিল করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নান বলেন, আমরা সংলাপে যাব। সেখানে আমরা অবশ্যই খাব। আমরা ডাল-ভাত খেতে যাব। ১৭ রকম খাবার খাব না। ডাল, ভাত, মাছ খাব। লাল রুটি খাব। অনুষ্ঠানে ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) অংশের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম রেজা, গণফ্রন্টের কামাল পাশা, মুসলিম লীগের নূর এ আলম, জনদলের জয় চৌধুরী, খলিল উল্লাহ, হাবীবুবল্লাহ বাহার কলেজের কিশোর কুমার, চাকসুর সাবেক ভিপি মাজহারুল হক বিকল্পধারায় যোগ দেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×