ভোটে না এলে বিএনপি বিলুপ্ত হয়ে যাবে: মুহিত

প্রকাশ : ০৩ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  কৃষ্ণকুমার দাস, কলকাতা থেকে

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, এবার ভোটে না এলে বিএনপি দলটার অস্তিত্ব পুরোপুরি বিলুপ্ত হয়ে যাবে। তাই নির্বাচন জেতার অতি সামান্যতম সম্ভাবনা থাকলেও ওরা (বিএনপি) যতই টালবাহানা করুক, ভোটে দাঁড়াতেই হবে।

শুক্রবার কলকাতায় বাংলাদেশ বইমেলার উদ্বোধনের পর তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপির তীব্র সমালোচনার পাশাপাশি তিনি দশ বছরে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, সাধারণ মানুষের আশীর্বাদ নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসবে আওয়ামী লীগ।

কলকাতায় মোহরকুঞ্জে অষ্টমবারের মতো বাংলাদেশ বইমেলা হচ্ছে। ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের ভূমিকারও তীব্র সমালোচনা করেছেন মুহিত। তিনি বলেন, কামাল হোসেন শিক্ষিত মানুষ। অল্প বয়সেই তার মেধা দেখে বঙ্গবন্ধু তাকে রিক্রুট করেছিলেন। কিন্তু এখন দেখছি, তার যে কোনো বিষয়ের প্রতি কমিটমেন্ট অত্যন্ত কম।

এদিন মুহিতের আগে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কলকাতা বইমেলার উদ্যোক্তা কমিটি পাবলিশার্স বুক গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায় প্রস্তাব দেন, পশ্চিমবঙ্গের প্রকাশকদের নিয়ে ঢাকায় প্রতি বছর একটা বইমেলা চালু করা হোক। ঢাকার প্রকাশকরা যেমন কলকাতায় এসে এখানকার পৌরসভা ও রাজ্য সরকারের সহযোগিতা নিয়ে বাংলাদেশ বইমেলা করছে। এভাবে ঢাকাতেও পশ্চিমবঙ্গের প্রকাশকদের নিয়ে একটি বইমেলা করা হোক।

পরে মুহিত জানান, নিয়ম মেনে সরকারি ব্যবস্থাপনায় আপনারা আয়োজন করুন, সরকার সব রকম সাহায্য করবে। মুহিতের কথা শেষ হতেই মঞ্চে বসা কলকাতার মেয়র পারিষদ দেবাশিস কুমার, ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে সামনে দর্শক আসনে বসে থাকা রবীন্দ্রভারতীর সাবেক উপাচার্য ড. পবিত্র সরকার, সাহিত্যিক বীথি চট্টোপাধ্যায় করতালি দিয়ে বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান।

কলকাতায় শুরু হওয়া এই বাংলাদেশ বইমেলা চলবে আগামী ১১ নভেম্বর পর্যন্ত। বাংলাদেশের ৬৯টি প্রকাশন সংস্থা এসেছে ৬১টি স্টলে।

বাংলাদেশ থেকে আসা শিল্পী ও কবি-সাহিত্যিকরা টানা দশ দিন ধরে নানা অনুষ্ঠান ও আলোচনায় অংশ নেবেন। কলকাতার উপদূতাবাস ও রফতানি ব্যুরোর ব্যবস্থাপনায় এই মেলা হচ্ছে। ছিলেন বাংলাদেশের বাংলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, অধ্যাপত রতন সিদ্দিকী, কলকাতার উপরাষ্ট্রদূত তৌফিক হোসেন প্রমুখ।