বগুড়া-২: ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী মান্নার পুনর্নির্বাচন দাবি

প্রকাশ : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  বগুড়া ব্যুরো

বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না কেন্দ্র দখল করে ভোট, কেন্দ্রে পুলিশের তালা, পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া ও ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগ এনে পুনর্নির্বাচন দাবি করেছেন।

রোববার বিকালে বগুড়া শহরতলির চার তারকা হোটেল নাজ গার্ডেনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। ওই আসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত এসপি আবদুল জলিল অভিযোগটি দৃঢ়তার সঙ্গে অস্বীকার করে বলেছেন, এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী শরিফুল ইসলাম জিন্নাহর লোকজন শনিবার রাত ১২টার দিকে কেন্দ্র দখল করে ব্যালটে সিল মেরে বাক্সে ফেলেছে। রোববার ফজরের নামাজের সময় থেকে লোকজন ভোট কেন্দ্রের দিকে আসতে থাকলে লাঙ্গল মার্কার লোকজন ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে তার লোকজন আধা ঘণ্টাও ভোট দিতে পারেননি।

তিনি দাবি করেন, পুলিশ কিচক, পাতাইরসহ বিভিন্ন কেন্দ্রে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে ভোটদানে বাধা দিয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি এবিএম কামাল সেলিম দাবি করেন, বগুড়া-২ আসনে লাঙ্গল মার্কার লোকজন ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ভোটারদের মাঝে আতংক সৃষ্টি করে। ১১০টি কেন্দ্রের মধ্যে পুলিশ ৫০ শতাংশ কেন্দ্রে তালা দেয়। এছাড়া লাঙ্গল মার্কার লোকজনের কারণে তাদের ৭০ শতাংশ ভোটার ভোট দিতে পারেননি।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, নির্বাচনে অরাজকতার কারণে তিনি বর্জন বা বাতিল নয়, পুনরায় তফসিল ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। বগুড়ার সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আবদুল জলিল বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী মাহমুদুর রহমান মান্নান অভিযোগ সত্য নয়। পুলিশ কোনো কেন্দ্রে তালা দেয়নি। আর কাউকে ভোটদানে বাধাও দেয়নি। তবে বুড়িগঞ্জ বাজার এলাকায় লাঙ্গল মার্কার সমর্থকদের ওপর হামলার কথা শুনেছেন।