গার্মেন্ট কর্মীকে গণধর্ষণের পর হত্যায় গ্রেফতার ১

  যুগান্তর রিপোর্ট, নোয়াখালী ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গার্মেন্ট কর্মীকে গণধর্ষণের পর হত্যায় গ্রেফতার ১

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় ধর্মপুর ইউনিয়নের পূর্ব শুল্লুকিয়া গ্রামের গার্মেন্টকর্মী পারভিন আক্তারকে (১৮) গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় এক ঘাতককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দলবেঁধে যৌন অত্যাচারের পর পেটে ছুরি ঢুকিয়ে এবং গলা ও পায়ের রগ কেটে হত্যার পর পারভিনের বাবা জহিরুল হক সুধারাম মডেল থানায় মামলা করেন।

সেখানে আসামি করা হয় স্থানীয় সন্ত্রাসী আনোয়ার হোসেন, তার ভাগ্নে ছালাউদ্দিনসহ উঠতি বয়সী সন্ত্রাসী সাদ্দাম, আজাদ, সোহাগ ও সাহিদকে। বৃহস্পতিবার রাতেই পুলিশ সাহাবুদ্দিনের ছেলে ঘাতক সাহিদকে (২০) গ্রেফতার করে। ঘটনার পর থেকেই অপর আসামিরা গা ঢাকা দিয়েছে। পুলিশ বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

জানতে চাইলে সুধারাম মডেল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন যুগান্তরকে বলেন, এখনও হত্যার রহস্য উদঘাটন করা যায়নি। গ্রেফতার সাহিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে রহস্য বের হয়ে আসতে পারে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ঘটনার পর গার্মেণ্টকর্মী পারভিন আক্তারের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতের মা নজিবা খাতুন বিলাপ করে বলছেন, আমি এই হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। এভাবে যেন আর কোনো মায়ের বুক খালি না হয়।

জানতে চাইলে নিহতের চাচা মো. সেলিম যুগান্তরকে বলেন, গ্রেফতার আসামির কাছ থেকে একটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে মোবাইলে ঠিক কি আছে সে বিষয়ে পুলিশ কিছু বলেননি আমাদের। জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বুধবার রাতে পারভিনকে তুলে জঙ্গলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণের পর নৃশংসভাবে হত্যা করে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×