কৃষক পর্যায়ে ধান কেনার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি

খাদ্যমন্ত্রী

  নওগাঁ ও নিয়ামতপুর প্রতিনিধি ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, আগামী ইরি-বোরো মৌসুমে ধানের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে কৃষক পর্যায়ে ধান কেনার বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। তবে সরকার ধান-চালের দাম বেঁধে দিয়েছে। মিলাররা যদি সরকারি দরে ধান কিনে এবং গুদামে চাল সরবরাহ করে, তাহলে বাজারে কোনো প্রভাব পড়বে না। এতে ভোক্তাদেরও কোনো সমস্যা হবে না।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর খাদ্যগুদাম পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের দেশে খাদ্যশস্য রাখার জন্য যে পর্যাপ্ত জায়গার প্রয়োজন তা নেই। বর্তমানে প্রায় ২১ লাখ টন ধারণক্ষমতার জায়গা আছে। এটা বৃদ্ধি না হওয়া পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব নয়। কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার পর চাল বের (ক্র্যাশিং) করাও একটা ঝামেলা। ধান থেকে চাল করতে যে লোকসান হয়, এতে চালের দাম বৃদ্ধি পায়। যার কারণে সরকার ধান-চালের দাম বেঁধে দিয়েছে।

তিনি বলেন, যে নীতিমালা তৈরি করা আছে, সেটাকে আমরা কঠোরভাবে দেখব। প্রতিটি জেলায় জেলা প্রশাসকদের প্রধান করে একটা তদারকি টিম গঠন করা হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কামাল হোসেন, পত্নতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এসএম আরমান আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিভাষ মজুমদার গোপাল প্রমুখ।

এদিকে বিকাল ৪টার দিকে নিয়ামতপুরে মান্দা-নিয়ামতপুর-শিবপুর-পোরশা রাস্তা প্রশস্তকরণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন খাদ্যমন্ত্রী। এ সময় তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে খাদ্য বিভাগের সব স্তরের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা কামনা করেন। খাদ্য কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মানুষের কল্যাণের স্বার্থে সততা ও আস্থার সঙ্গে কাজ করতে হবে।

নিয়ামতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হকের সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন নওগাঁ-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলী মুহম্মাদ হামিদুল হক প্রমুখ।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×