আজ বিশ্ব ক্যান্সার দিবস

স্বীকৃত চিকিৎসার বাইরে দুই-তৃতীয়াংশ রোগী

দেশে বছরে দেড় লাখ মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়

  রাশেদ রাব্বি ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্যান্সার

তৃতীয় বিশ্বের ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মাত্র এক-তৃতীয়াংশ স্বীকৃত চিকিৎসার আওতায় আসে। অর্থাৎ উন্নত আধুনিক চিকিৎসা গ্রহণ করে। বাকি দুই-তৃতীয়াংশই নানা অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতির চিকিৎসা করছে বা থেকে যাচ্ছে চিকিৎসার বাইরে।

গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সি ফর রিসার্চ অন ক্যান্সার (আইএআরসি)-এর তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতিবছর ১ লাখ ৫০ হাজার মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হন।

এর মধ্যে মারা যান ১ লাখ ৮ হাজার। এদিকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, ক্যান্সার নির্ণয়ের এক বছরের মধ্যে প্রায় ৭৫ ভাগ রোগী হয় মারা যান, না হয় ভয়াবহ আর্থিক সংকটে পড়েন। এ ছাড়া বিশ্বে প্রতিবছর প্রায় ১ কোটি ২৭ লাখ মানুষ নতুন করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছেন। এর মধ্যে মারা যাচ্ছেন প্রায় ৭৭ লাখ মানুষ। এমন পরিস্থিতিতে অন্যান্য দেশের মতো আজ বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে বিশ্ব ক্যান্সার দিবস। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘আই অ্যাম অ্যান্ড আই উইল’ অর্থাৎ ‘আমি পারি এবং আমি পারব’। ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর ক্যান্সার কন্ট্রোল (ইউআইসিসি) ২০০৬ সাল থেকে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালনে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বে ক্যান্সার রোগী ও ক্যান্সারজনিত মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে আগামী ২০-৪০ বছরের মধ্যে এ সংখ্যা দ্বিগুণ হবে। আরও উদ্বেগের বিষয় হল- ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা ক্ষিপ্র গতিতে বাড়ছে স্বল্প ও মধ্যম আয়ের দেশে, যেখানে ক্যান্সারের সঙ্গে লড়ার আর্থিক ও সামাজিক অবকাঠামো নিতান্তই অপ্রতুল।

সংশ্লিষ্টরা জানান, দেশে পুরুষদের মাঝে ফুসফুস, মুখ গহ্বর ও স্বরনালির ক্যান্সার বেশি দেখা যায়। অন্যদিকে নারীদের জরায়ু, স্তন ও মুখ গহ্বরের ক্যান্সার দেখা যায় বেশি। তবে এসব ক্যান্সার প্রতিরোধযোগ্য। এ প্রসঙ্গে জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোল্লা ওবায়েদুল্লাহ বাকি যুগান্তরকে বলেন, শুধু ধূমপান বন্ধ করে ফুসফুসের ক্যান্সার, মুখ গহ্বর, স্বরনালি, পাকস্থলী, অগ্নাশয়, মূত্রথলি, স্তন ক্যান্সার ও জরায়ু ক্যান্সার অনেকাংশে প্রতিরোধ করা সম্ভব। অন্যদিকে মেয়েদের কম বয়সে বিয়ে না দিয়ে, অধিক সন্তান গ্রহণ না করে, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে এবং এইচপিভি ভ্যাকসিন নিয়ে অধিকাংশ জরায়ু মুখের ক্যান্সার প্রতিরোধ সম্ভব।

দিবসটিকে সামনে রেখে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে রোববার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ‘সর্বশেষ ক্যান্সার পরিস্থিতি বিশ্লেষণ ও উত্তরণে গণমুখী প্রস্তাবনা’ শীর্ষক এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে মার্চ ফর মাদার। এতে বক্তব্য দেন জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউটের এপিডেমিওলজি বিভাগের প্রধান ডা. হাবিবুল্লা তালুকদার, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাবেক আঞ্চলিক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হক, মোসারাত জাহান সৌরভ প্রমুখ।

দিবসটি উপলক্ষে প্রফেসর ডা. ওবায়েদুল্লাহ-ফেরদৌসী ফাউন্ডেশন ক্যান্সার হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট ও বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির উদ্যোগে আজ দুপুর আড়াইটায় মিরপুরের দারুস সালামে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া বিকাল ৩টায় বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির ডা. শাহাদাত হোসেন কনফারেন্স হলে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×