কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলিবিদ্ধ লাশ

  টেকনাফ প্রতিনিধি ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কক্সবাজারের টেকনাফে ক্যাম্প থেকে হামিদ হোসেন (৩৮) ওরফে ডা. হামিদের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোরে শালবন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর সকালে লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। থানার উপ-পরিদর্শক সুজিত চন্দ্র দে জানান, নিহত হামিদের বুকে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৮টি গুলির ক্ষত পাওয়া গেছে। হামিদ শালবন ২৬নং ক্যাম্পের ব্লক এ-২তে বসবাসকারী মৃত মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে।

শুক্রবার ভোরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় শীর্ষ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী আরসা নেতা নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আনসার কমান্ডার হত্যা ও অস্ত্র লুট মামলার আসামি নূরুল আলম। এর জেরে সন্ধ্যার পর থেকে শালবন ও নয়াপাড়া ক্যাম্পে তাণ্ডব চালায় তার সহযোগীরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতার অভিযোগে সন্দিগ্ধ রোহিঙ্গাদের খুঁজতে থাকে তারা। এসময় প্রথমে হামিদকে পাহাড়ের কাছে নিয়ে গুলি করে ফেলে রাখে। ভয়ে রোহিঙ্গারা গুলিবিদ্ধ হামিদকে উদ্ধারে এগিয়ে যায়নি। ফলে সেখানেই তার মৃত্যু ঘটে। রাতে যৌথ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী হামিদের লাশ খুঁজে পায়। সাধারণ রোহিঙ্গারা জানান, স্বশস্ত্র রোহিঙ্গারা তাদের কাছে আল একিন নামে পরিচিত। একজন উপসচিব মর্যাদার ক্যাম্প ইনচার্জের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী উখিয়া-টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো পরিচালনা করছে। কিন্তু মূলত রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে আল একিন সদস্যরাই। ক্যাম্পের রোহিঙ্গা মাঝি কিংবা সাধারণ রোহিঙ্গারা তাদের নির্দেশ অমান্য করলে হত্যা নির্যাতনের শিকার হতে হয়। শুক্রবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত নূরুল আলম ছিল রোহিঙ্গাদের কাছে পরিচিত স্বশস্ত্র আল একিন নেতা।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×