নোয়াখালীতে পাউবোর জমি দখল করে মার্কেট

উদ্ধারে কর্তৃপক্ষ নির্বিকার

  মো. হানিফ, নোয়াখালী ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জমি দখল

নোয়াখালীতে বেদখল হয়ে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) কোটি কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি। ভূমিগ্রাসী চক্র সরকারি জমি অবৈধভাবে দখল করে পাকা মার্কেট নির্মাণ করেছে। শুধু তাই নয়, দখল করা জমিতে মার্কেট নির্মাণ করে নিজেরা ব্যবসার পাশাপাশি দোকান ভাড়া দিয়ে প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

তারা মার্কেটের দোকান সহজ সরল মানুষের কাছে বিক্রিও করেছে। এতে সরকার প্রতি বছর কোটি টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। পাউবোর জমি উদ্ধারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নীরবতা পালন করছে।

জানা যায়, নোয়াখালী সদর, হাতিয়া, সুবর্ণচর, কোম্পানীগঞ্জ, কবিরহাট, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িসহ দু’পাশে একোয়ার করা প্রায় পাঁচ হাজার একর জমি রয়েছে। প্রতি বছর পানি উন্নয়ন বোর্ড ওই জমি থেকে সরকারকে প্রায় ১০ লাখ টাকার রাজস্ব পরিশোধ করে।

একোয়ার করা জমির মধ্যে সোনাপুর জিরো পয়েন্ট-কালিতারা বাজার-মন্নান নগর-হানিফ মেম্বার বাড়ির উত্তর পাশে বাজার-ওদারহাট বেড়ির পাশে প্রায় ৪০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে এক হাজার একর জমি রয়েছে। অপর দিকে মন্নান নগর-আটকপালিয়া বাজার বেড়ির দু’পাশে ২০ কিলোমিটার দক্ষিণে প্রায় ১০০ একর জমি রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মচারীরা যুগান্তরকে জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলী যোগদানের পর থেকে ২০১৬-১৯ অর্থবছরে বেড়ির পাশে যানজটমুক্ত ও অব্যবহৃত জমি নবায়ন না করায় সরকার প্রতি বছর লাখ লাখ টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ইজারাকৃত জমিতে পাকা মার্কেট ভবন নির্মাণ করার বিধি না থাকলেও ভূমিগ্রাসীরা আমলে নেয়নি। পাউবোর সার্ভেয়ার ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে ওই একসনা ইজারাকৃত বেড়ির দু’পাশে অব্যবহৃত পরিত্যক্ত যানজটমুক্ত জমি ইজারা ও পুনঃনবায়ন না করে ভূমিগ্রাসীরা অবৈধ দখলে নিয়েছে। সেখানে পাকা মার্কেট নির্মাণ করে ব্যবসা করছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের গত ১০ বছর ধরে একাধিকবার ওই অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে এলাকার ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করলেও আমলে নেয়নি তারা। গত ১০ বছর ভূমিগ্রাসীরা দফায় দফায় পাউবোর বেড়ির পাশে জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণ করেছে।

জানা গেছে, কালাদরাফ ইউপির মান্দারতলি গ্রামের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি কর্মী আনোয়ার উল্লা, তার ছেলে আবুল কালাম আজাদ, আবদুল মালেক, গত অক্টোবর-নভেম্বরে উপজেলার চর করমুল্যা বাজার মসজিদের পশ্চিম পাশে বেড়ির উত্তরে পাউবোর একোয়ার করা প্রায় এক কোটি টাকা মূল্যের জমি অবৈধভাবে দখল করে তিনতলা ফাউন্ডেশন দিয়ে মার্কেট নির্মাণ করেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাউবোর কর্মচারীরা যুগান্তরকে জানান, সার্ভেয়ার প্রদীপ নারায়ণকে ম্যানেজ করে আনোয়ার উল্লা ও তার দুই ছেলে পাউবোর জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণ করেছে। সার্ভেয়ার প্রদীপ নারায়ণ মুঠোফোনে যুগান্তরকে জানান, আনোয়ার উল্লা তার দুই ছেলে আবুল কালাম আজাদ ও আবদুল মালেক ওই জমি অবৈধ দখল করে পাকা নির্মাণ করেছে, এটা সঠিক। তবে তারা এলাকার চিহ্নিত ভূমিগ্রাসী ও জোতদার।

এদিকে পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী নাছির উদ্দিন পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়ির পাশের জমি ভূমিগ্রাসীরা দখল করে পাকা-আধাপাকা মার্কেট নির্মাণের কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘জেলা প্রশাসকের কাছে অবৈধ দখলদারদের তালিকা দিলেও ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ না করায় দফায় দফায় সরকারের জমি উদ্ধারকাজ বিঘ্নিত হচ্ছে। করমুল্যা বাজারে আনোয়ার উল্লা ও তার দুই ছেলে বেড়ির পাশে প্রায় কোটি টাকার জমি দখল করে পাকা মার্কেট নির্মাণ করেছে। ঘটনা সঠিক। এতে আমার করার কিছুই নেই।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×