শরীয়তপুরে লবণ খাইয়ে ২ মাসের শিশু হত্যা

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শরীয়তপুরে লবণ খাইয়ে গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডল নামে ২ মাসের একটি শিশুকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে কে বা কারা এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। শনিবার সকাল ১০টার দিকে শরীয়তপুর সদরের প্রেমতলা যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পশ্চিম পাশের বাড়িতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নিহত শিশুর মা দিপা রানী বলেন, আমার ছেলের হত্যাকারীদের বিচার চাই।

পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, শরীয়তপুর সদরের প্রেমতলা যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পশ্চিম পাশে মণ্ডল বাড়ির বিমল চন্দ্র মণ্ডলের একমাত্র ছেলে গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডল। ঘরের ভেতরে ঘুম পাড়িয়ে রেখে সকাল ১০টার দিকে গোসল করতে যান শিশুটির মা দিপা রানী। গোসল শেষে ঘরে গিয়ে তার ছেলেকে দেখতে না পেয়ে খুঁজতে থাকেন। এ সময় তার চিৎকার শুনে বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। খোঁজাখুঁজির একপর্যায় বিমলের বড় বোন গিতা রানী মণ্ডল শিশুটিকে ঘরের বারান্দার খাটের এক কোণে রেকসিন পেঁচানো অবস্থায় দেখতে পায়। এ সময় শিশুটির মুখে ও নাকের মধ্যে লবণ মাখানো ছিল বলে জানায় পরিবার ও স্থানীয়রা। তাৎক্ষণিক শিশুটিকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পালং মডেল থানা পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহতের মা দিপা রানী ও পরিবারের দাবি, তাদের পার্শ্ববর্তী দীগেন মণ্ডলের সঙ্গে একটি মোবাইল ফোন চুরিকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। ঘটনার পর পুলিশ উভয় পরিবারের লোকজন থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। বিমলের বোন গিতা বলেন, আমি অন্য বাড়িতে ভাড়া থাকি। হঠাৎ লোকমুখে খবর শুনি বিমলের ছেলে পাওয়া যাচ্ছে না। আমি সঙ্গে সঙ্গেই বাড়িতে গিয়ে সবার সঙ্গে খোঁজাখুঁজি শুরু করি। অনেকক্ষণ খোঁজ করার পর ঘরের বারান্দার খাটের নিচে রেকসিন পেঁচানো অবস্থায় তাকে দেখতে পাই। এরপর হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার জানান, শিশুটি মারা গেছে। বিমলের চাচাতো ভাই নিখিল মণ্ডল বলেন, আমি প্রেমতলা ছিলাম। আমার ভাইয়ের বাচ্চা পাওয়া যাচ্ছে না শুনে বাড়িতে গিয়ে শুনি গিতা চিৎকার দিয়ে বলছে, বাচ্চা পাইছি। কাছে গিয়ে দেখি শিশুটির নাকে-মুখেসহ সারা শরীরে লবণ ছিটানো রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×