সুস্থ থাকুন

মলদ্বারে যোগের লক্ষণ

  অধ্যাপক ডা. রাফিকুল মোহাম্মদ আনোয়ার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মলদ্বারে যোগের লক্ষণ

গ্যাস্টাইনস্টোইনাল রোগ মুখ থেকে শুরু হয়ে পায়ুপথে গিয়ে শেষ হয়। এ সিস্টেমের সবচেয়ে শেষের ৩-৪ সেমি. অংশকে পায়ুপথ বলা হয়।

পায়ুপথ মলত্যাগকে নিয়ন্ত্রণ করে। পায়ুপথের রোগের মধ্যে রেকটাম ও বৃহদান্ত্রের ক্যান্সার পৃথিবীজুড়ে বেড়ে যাচ্ছে। পায়ুপথের সাধারণ রোগের মধ্যে হেমোরেয়েডস বা পাইলস, ফিসার, ফিস্টুলা ও প্রোলান্স অন্যতম।

প্রতিটি রোগের যে উপসর্গ হয় তার প্রভাব সুদূরপ্রসারী। তাই এ অংশের রোগকে অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে ম্যানেজ করা উচিত। প্রথম উপসর্গ হল মলদ্বার বা পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্ত যাওয়া।

যদিও এ উপসর্গ খুব কমন বা সাধারণ, পশ্চিমা দেশে প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ১০ ভাগ লোকের পায়ুপথ দিয়ে রক্ত যায়। ঢাকা শহরের ২ কোটি লোকের মধ্যে ২০ লাখ রোগীর পায়ুপথ দিয়ে রক্ত যেতে পারে।

৯০ ভাগ ক্ষেত্রে এর কারণ হচ্ছে- পাইলস বা হেমোরেয়েডস। এদের মধ্যে ৬-৭ ভাগ রোগীর পায়ুপথের বা রেকটামের রক্ত যাওয়ায় অন্যতম কারণ ক্যান্সার।

ফিস্টুলা হলে পায়ুপথে ফোঁড়া হয়ে ব্যথাও পেটে যায় ও জ্বর হয়। ফোঁড়া কেটে ফেলে ভেতরে একটি নালি তৈরি হয় যা কখনই চলে যায় না।

এ ময়লাগুলো পায়ুপথ দিয়ে বেরিয়ে আসে। এর বাইরে ও ভেতরে মুখ থাকে একে পাইলস বলে। প্রথম ডিগ্রিতে বেরিয়ে আসে না কিন্তু রক্ত পড়ে।

দ্বিতীয় ডিগ্রিতে বেরিয়ে আসে টয়লেটের সময়। তৃতীয় ও চতুর্থ ডিগ্রি পাইলসে ব্লি­ডিং হয় বা না-ও হতে পারে। এনালফিসার পায়খানা করার সময় অনেক ব্যথা থাকে।

প্রোল্যাপস হল পায়ুপথ দিয়ে মলদ্বার বেরিয়ে আসে। এটি মেয়েদের বাচ্চা হওয়ার সময় প্রোল্যাপস হয়। পায়ুপথে ক্যান্সার হলে রেডিও কেমিওথেরাপি থাকে।

অধ্যাপক ডা. রাফিকুল মোহাম্মদ আনোয়ার

বৃহদান্ত্র ও পায়ুপথ সার্জারি বিশেষজ্ঞ সার্জন

মোবাইল : ০১৭৮৭৬৯৪৫০৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×