সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু ১০ মে
jugantor
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু ১০ মে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৫ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা ১০ মে শুরু হবে। এবার পাঁচ ধাপে নেয়া হবে এ পরীক্ষা। প্রথম ধাপে ২০ হাজারের কম প্রার্থী থাকা সাত জেলার পরীক্ষা নেয়া নেয়া হবে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবদুল মান্নান সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এবারও ডিজিটাল পদ্ধতির ব্যবহার করে নেয়া হবে এ পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে আছে- সফটওয়্যারের মাধ্যমে আসন ব্যবস্থা করা; রাতেই অনলাইনে জেলায় জেলায় প্রশ্ন পাঠানো। তবে ওই সব প্রশ্ন সকাল ৮টায় বিশেষ কোডের মাধ্যমে খুলে কেন্দ্রেই ছাপানো হবে। এরপর পরীক্ষা নেয়া হবে। পরীক্ষার জন্য মোট ২০ সেট প্রশ্ন তৈরি করা হবে।

এ পরীক্ষার মাধ্যমে ১২ হাজার শিক্ষক নেয়া হবে। এর বিপরীতে সর্বমোট ২৪ লাখ ৫ প্রার্থী আবেদন করেছেন। সেই হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে প্রার্থী ২০০। তিন পার্বত্য জেলা বাদে বাকি ৬১ জেলায় এবার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এসব জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রার্থী চট্টগ্রাম জেলায় ৯৮ হাজার ৯৬৯ জন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রার্থী ময়মনসিংহ জেলায় ৮৮ হাজার ২১৮ জন। এছাড়া কুমিল্লায় আবেদন পড়েছে ৮৪ হাজার ৭২৮টি, দিনাজপুরে ৬২ হাজার ৯৭১টি, রংপুরে ৫৯ হাজার ৭১টি, জয়পুরহাটে ১৮ হাজার ১৭৮টি, বগুড়ায় ৬৪ হাজার ৭২৭টি, জামালপুরে ৫০ হাজার ৫০টি, যশোরে ৫৫ হাজার ৯৩২টি, টাঙ্গাইলে ৬১ হাজার ৬৩০টি, নওগাঁয় ৪৯ হাজার ৮৬৩টি, রাজশাহীতে ৫৭ হাজার ৩৮২টি, ঢাকায় ৬৪ হাজার ৫৫৮টি, বরিশালে ৬১ হাজার ৮৮৩টি ও সিলেট জেলায় ৫০ হাজার ৩৭০টি।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু ১০ মে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা ১০ মে শুরু হবে। এবার পাঁচ ধাপে নেয়া হবে এ পরীক্ষা। প্রথম ধাপে ২০ হাজারের কম প্রার্থী থাকা সাত জেলার পরীক্ষা নেয়া নেয়া হবে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবদুল মান্নান সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এবারও ডিজিটাল পদ্ধতির ব্যবহার করে নেয়া হবে এ পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে আছে- সফটওয়্যারের মাধ্যমে আসন ব্যবস্থা করা; রাতেই অনলাইনে জেলায় জেলায় প্রশ্ন পাঠানো। তবে ওই সব প্রশ্ন সকাল ৮টায় বিশেষ কোডের মাধ্যমে খুলে কেন্দ্রেই ছাপানো হবে। এরপর পরীক্ষা নেয়া হবে। পরীক্ষার জন্য মোট ২০ সেট প্রশ্ন তৈরি করা হবে।

এ পরীক্ষার মাধ্যমে ১২ হাজার শিক্ষক নেয়া হবে। এর বিপরীতে সর্বমোট ২৪ লাখ ৫ প্রার্থী আবেদন করেছেন। সেই হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে প্রার্থী ২০০। তিন পার্বত্য জেলা বাদে বাকি ৬১ জেলায় এবার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এসব জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রার্থী চট্টগ্রাম জেলায় ৯৮ হাজার ৯৬৯ জন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রার্থী ময়মনসিংহ জেলায় ৮৮ হাজার ২১৮ জন। এছাড়া কুমিল্লায় আবেদন পড়েছে ৮৪ হাজার ৭২৮টি, দিনাজপুরে ৬২ হাজার ৯৭১টি, রংপুরে ৫৯ হাজার ৭১টি, জয়পুরহাটে ১৮ হাজার ১৭৮টি, বগুড়ায় ৬৪ হাজার ৭২৭টি, জামালপুরে ৫০ হাজার ৫০টি, যশোরে ৫৫ হাজার ৯৩২টি, টাঙ্গাইলে ৬১ হাজার ৬৩০টি, নওগাঁয় ৪৯ হাজার ৮৬৩টি, রাজশাহীতে ৫৭ হাজার ৩৮২টি, ঢাকায় ৬৪ হাজার ৫৫৮টি, বরিশালে ৬১ হাজার ৮৮৩টি ও সিলেট জেলায় ৫০ হাজার ৩৭০টি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন