শিশু ধর্ষণ ও হত্যায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

কুমিল্লায় কিশোরীকে ধর্ষণ ও পুড়িয়ে হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন * বরিশালে তরুণীকে ধর্ষণ ও কুড়িগ্রামে শিশুকে ধর্ষণের দায়ে দু’জনের যাবজ্জীবন

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মৃত্যুদণ্ড

চট্টগ্রামে এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া কুমিল্লায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় দু’জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড, বিয়ের প্রলোভনে তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে বরিশালে একজনের এবং কুড়িগ্রামে শিশুকে ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

চট্টগ্রাম : সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে আরশাদুর রহমান ওরফে এরশাদ নামে একজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। সোমবার দুপুরে চট্টগ্রামের বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক আবদুল হালিম এ রায় দেন।

২০১৬ সালের ২০ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর উপজেলার কাসাইট্যা গ্রামে আয়োজিত মেলায় আরশাদুর রহমান ওরফে এরশাদের দোকান থেকে চুলের ব্যান্ড কেনে শফিকুল ইসলামের মেয়ে তোবা মনি।

পরে সন্ধ্যার দিকে তোবা মনি একা বাড়ি ফেরার পথে এরশাদ তার পিছু নেয় এবং তাকে তুলে নিয়ে পাশের শিমক্ষেতে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ জঙ্গলে ফেলে যায়।

কুমিল্লা : কুমিল্লার সদর দক্ষিণে কিশোরী নিলুফা আক্তারকে ধর্ষণের পর কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় দু’জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতের বিচারক এমএ আউয়াল এ আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আবু তালেব কারাগারে এবং অপর আসামি জ্যোৎস্না বেগম পলাতক রয়েছেন। উপজেলার মাতাইনকোট গ্রামের মকবুল আহমেদের ছেলে আবু তালেব একই গ্রামের সেলিম মিয়ার মেয়ে কিশোরী নিলুফা আক্তারকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে নিলুফা বিয়ের জন্য আবু তালেবকে চাপ দেয়। ২০১১ সালের ২৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় নিলুফার বাবা মসজিদে গেলে আবু তালেব তাদের বাড়িতে যায় এবং নিলুফাকে উঠোনে ডেকে আনে। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী একই বাড়ির আবদুর রহমানের স্ত্রী জ্যোৎস্না বেগম নিলুফার মুখ চেপে ধরে এবং আবু তালেব শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে নিলুফার শরীরের ৮৪ শতাংশ পুড়ে যায়। ২৬ জানুয়ারি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নিলুফা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে জবানবন্দি দেয় এবং ৩১ জানুয়ারি ভোরে সে মারা যায়। এ ঘটনায় নিলুফার বাবা সেলিম মিয়া দু’জনকে আসামি করে মামলা করেন।

বরিশাল : মেহেন্দিগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে সামসুল আলম (৩২) নামক একজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছর কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়। বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শামীম আহম্মেদ সোমবার এ রায় দেন। দণ্ডিত সামসুল আলম পলাতক। সে উপজেলার খস্তাখালী গ্রামের বাসিন্দা। সামসুল আলম বিয়ের প্রভোলন দেখিয়ে ২০১০ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে একই বছরের ২৩ নভেম্বর মামলা করেন।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীর নলেয়া গ্রামে এক কিশোরীকে (১৪) তুলে নিয়ে ধর্ষণের দায়ে বাদশা মিয়া নামে এক ব্যক্তিকে পৃথক দুই ধারায় ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাস সশ্রম কারাদণ্ড এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ৫ মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। উভয় দণ্ড একসঙ্গে কার্যকর হবে। সোমবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক অম্লান কুসুম জিষ্ণু এই আদেশ দেন। রায়ে অপর আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×