ঈদের জামাতের জন্য প্রস্তুত শোলাকিয়া

প্রকাশ : ০৪ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো

উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী ঈদগাহ ময়দান শোলাকিয়ায় ঈদুল ফিতরের ১৯২তম জামাত আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কিশোরগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠে অবস্থিত ময়দানটি ঘিরে নেয়া হয়েছে চার স্তরের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা। পর্যবেক্ষণে থাকছে ড্রোন ক্যামেরা। এছাড়া এবারই প্রথম স্নাইপার রাইফেল হাতে পাহারা দেবেন র‌্যাব সদস্যরা।

শোলাকিয়ায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ১০টায়। ইমামতি করবেন মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ। প্রতি বছরের মতো এবারও দেশ-বিদেশের প্রায় ২-৩ লাখ মুসল্লি এতে অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। জামাত উপলক্ষে ময়দানের চারপাশের দেয়ালে রং করা হয়েছে। ময়দানের খানাখন্দ ভরাট করে লাইন আঁকা হয়েছে। এছাড়া নিরাপত্তা রক্ষায় সিসি ক্যামেরা বসানো, ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ, ভূগর্ভস্থ মাইক্রোফোন সংযোগ পরীক্ষাকরণের কাজ শেষ হয়েছে।

রোববার দুপুরে ময়দানের সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী। তিনি জানান, ২০১৬ সালে শোলাকিয়া ময়দানে জঙ্গি হামলার অভিজ্ঞতা আর সম্প্রতি দেশে-বিদেশে জঙ্গি হামলার বিষয়গুলোকে সামনে রেখে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী গোয়েন্দা সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে যাবতীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। জামাতে মুসল্লিদের অংশ নিতে ময়মনসিংহ ও ভৈরব থেকে দুটি স্পেশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুসল্লির থাকা-খাওয়াসহ যাবতীয় সেবা দেয়া হবে।

পুলিশ সুপার মাশররুকুর রহমান খালেদ জানান, ময়দানের নিরাপত্তায় ১২০০ পুলিশ, ৫ প্লাটুন বিজিবি, ১০০ র‌্যাবসহ গোয়েন্দ সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী অন্যান্য বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য মোতায়েন থাকবে। আর্চওয়ে, ওয়াচ টাওয়ার, ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা, মেটাল ডিডেক্টর দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণে ব্যবহার করা হবে ড্রোন ক্যামেরা। এছাড়া, বোম ডিসপোজাল টিম, সুইপিং টিম থাকবে। মাইন ডিটেক্টর দ্বারা ঈদগাহ ময়দান সুইপিং করা হবে। এবার ঈদগাহ এলাকায় জায়নামাজ ছাড়া অন্যকিছু বহন করা যাবে না বলে জানান তিনি।