রামগড়ে ভারতীয় হাইকমিশনারের মৈত্রী সেতু পরিদর্শন

  রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি ১৭ Jun ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খাগড়াছড়ির রামগড় ও ভারতের সাব্রুম এলাকায় ফেনী নদীতে নির্মাণাধীন ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু-১ এর নির্মাণকাজ, স্থলবন্দর এলাকা এবং মহামুনি বৌদ্ধবিহার পরিদর্শন করেছেন ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাশ। রোববার বেলা ১১টায় হাইকমিশনার তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে রামগড় স্থলবন্দর এলাকায় এসে পৌঁছলে তাকে আনুষ্ঠানিক অভ্যর্থনা জানান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ৪৩ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল তারিকুল হাকিম, খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম সালাউদ্দিন, জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু প্রমুখ। পরিদর্শন শেষে ভারতীয় হাইকমিশনার সাংবাদিকদের বলেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী সেতু ও স্থলবন্দর কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্যিক সুবিধা বৃদ্ধি পাবে, তেমনি দুই দেশের মধ্যে একটি ভ্রাতৃত্বের সেতুবন্ধন তৈরি হবে। পরিদর্শনে ভারতীয় হাইকমিশনারের সঙ্গে ছিলেন- ডেপুটি কমিশনার (চট্টগ্রাম) অনিন্দ্র ব্যানার্জি, ভারতীয় ন্যাশনাল হাইওয়ের জিএম দিল ভাকসিং, ফার্স্ট সেক্রেটারি নবনিতা চক্রবর্তী প্রমুখ। পরে রামগড় পাহাড়াঞ্চল কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে দুপুরের খাবার শেষে রামগড় ত্যাগ করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৬ জুন প্রাধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি ঢাকায় সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ৪১২ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১৪.৮০ মিটার প্রস্থের সেতুটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৮২.৫৭ কোটি ভারতীয় রুপি। ২০২০ সালের এপ্রিলে সেতুটির নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত