আমদানি করা গুঁড়ো দুধে ৫০ শতাংশ শুল্ক আরোপের প্রস্তাব

ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় রাস্তায় দুধ ঢেলে প্রতিবাদ

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গুঁড়ো দুধ

আমদানি করা গুঁড়ো দুধের ওপর ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ৫০ শতাংশ শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করেছে বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মার্স অ্যাসোসিয়েশন। দেশীয় দুগ্ধ খামারিদের রক্ষা করতে এ প্রস্তাব করা হয়।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি ইমরান হোসেন এ প্রস্তাব দিয়ে বলেন, দুধের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে দেশের খামারিরা রাগে-ক্ষোভে রাস্তায় দুধ ঢেলে দিয়েছিল।

তাদের সঙ্গে একাÍ হয়ে আমরাও প্রতীকী প্রতিবাদ হিসেবে রাস্তায় দুধ ঢেলে দিচ্ছি। প্রস্তাবিত বাজেটে কনসেশনারি কাস্টম ডিউটি ৫ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। এটা দুগ্ধ খামারিদের তেমন কাজে আসবে না বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়। বলা হয়, দেশের উদীয়মান দুগ্ধ শিল্পকে ধ্বংসের জন্য একটি মহল গুঁড়ো দুধ আমদানির পক্ষে কাজ করছে। ইমরান হোসেন বলেন, পর্যায়ক্রমে গুঁড়ো দুধের আমদানি শুল্ক বাড়ানো হোক।

কারণ মোট চাহিদার প্রায় ৭০ শতাংশ দুধ এখন দেশে উৎপাদন হয়। সাত বছরে দুধের উৎপাদন বেড়েছে তিনগুণ। এ ক্ষেত্রে আমদানি শুল্ক পর্যায়ক্রমে বাড়িয়ে দেশীয় দুগ্ধ শিল্পকে প্রণোদনা ও সহযোগিতা বাড়ানো দরকার। এতে দেশের দুগ্ধ শিল্প বেঁচে যাবে এবং বিকাশ লাভ করবে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২০১০-১১ সালে দুধের চাহিদা ছিল ১ কোটি ৩০ লাখ টন। ওই সময় স্থানীয়ভাবে প্রায় ২৪ লাখ টন উৎপাদন হতো। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে দুধের চাহিদা দেড় কোটি টনে পৌঁছায়। একই সময়ে দেশের দুগ্ধ খামারিরা উৎপাদন করছে ৯৪ লাখ টন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×