মা-ছেলেসহ সড়কে নিহত ১২

৫৯ দিনে ঝরল ৬০৬ প্রাণ

প্রকাশ : ৩০ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে মুকসুদপুরে মা-ছেলে ও রংপুরের মিঠাপুকুরে প্রাণ গেছে তিনজনের। এছাড়া রাজধানীতে মোটরসাইকেল আরোহী, যশোরে ট্রাকের হেলপার ও নসিমন চালক, সাতক্ষীরার দেবহাটায় শিশু, ভোলার চরফ্যাশনে একজন, জয়পুরহাটের কালাইয়ে যুবক ও ময়মনসিংহের ভালুকায় বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে ৫৯ দিনে প্রাণ গেল ৬০৬ জনের। স্টাফ রিপোর্টার, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

টেকেরহাট (মাদারীপুর) : গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে বাসচাপায় নিহত হয়েছেন মা ফাতেমা আক্তার শাওন (২৭) ও ছেলে সাকিব খান (৮)। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে উপজেলার গেড়াখোলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফাতেমা আক্তার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ঢাকপাড় গ্রামের শিক্ষক এরশাদ খানের স্ত্রী। এ ঘটনায় এলাকাবাসী প্রায় ২ ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ বিক্ষোভ করে বেশ কিছু গাড়ি ভাংচুর করে। খুলনাগামী যাত্রীবাহী বাসটি গেড়াখোলা নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মা-ছেলেকে চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। ছেলে সাকিবকে স্কুলে নিয়ে যাচ্ছিলেন মা।

রংপুর : মিঠাপুকুরে নাবিল পরিবহনের বাসচাপায় নিহত তিনজন হলেন- দুর্গাপুর ইউনিয়নের কাঁঠালী দক্ষিণপাড়া গ্রামের মধু মিয়া (৪৫), শঠিবাড়ী হরিপুর গোহাটি গ্রামের মুরাদ মিয়া (২৮) ও রংপুর সদরের সম্ভু বাবু (৩০)। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টায় শঠিবাড়ী উত্তর বাস স্ট্যান্ডে ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে মিঠাপুকুর থানায় মামলা হয়েছে। জানা গেছে, ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের শঠিবাড়ী দক্ষিণ বাস স্ট্যান্ডের ফিলিং স্টেশনের পাশে ফুটপাতে মোটরসাইকেলে বসে কথা বলছিলেন পরিবহন ব্যবসায়ী মধু মিয়া, মেকানিক মুরাদ মিয়া ও সম্ভু বাবু। এসময় ঢাকাগামী ওই বাস ওভারটেক করার সময় ফুটপাটে তাদের চাপা দেয়।

রাজধানী : রাজধানীর খিলগাঁও ত্রিমোহনী মেরাদীয়া বাজারে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত মোটরসাইকেল আরোহী মুন্না (৩৫) দক্ষিণ বনশ্রী এলাকার বাসিন্দা। তিনি মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী থানার চৌসার বাহনখাড়া গ্রামের জিন্নাত শেখের ছেলে। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি মুন্না টায়ার অ্যান্ড ব্যাটারি প্রতিষ্ঠানের মালিক।

যশোর : যশোরের বাঘারপাড়া নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকের হেলপার মনিরুল ইসলাম ও শার্শায় বাসের ধাক্কায় নসিমন চালক টুটুল হোসেন নিহত হয়েছেন। শনিবার যশোর-মাগুরা সড়কের সাদিপুর ও যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের জামতলায় এ দুর্ঘটনা দুটি ঘটে। নিহত মনিরুল যশোর সদর উপজেলার শাহাপুর আড়পাড়ার আবদুল মজিদের ছেলে ও টুটুল হোসেনের বাড়ি ঝিকরগাছার লক্ষ্মীপুর গ্রামে।

সাতক্ষীরা : দেবহাটা উপজেলার গাজিরহাটে মাহিন্দ্র চাপায় নিহত শিশু নাসিমা সুশীলগাতি গ্রামের আবদুর রহমান প্রাণের মেয়ে। শনিবার সাতক্ষীরা-কালীগঞ্জ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। শিশুটি বাবা-মায়ের সঙ্গে মামার বাড়ি যাচ্ছিল। রাস্তা পার হওয়ার সময় মাহিন্দ্র তাকে চাপা দেয়।

চরফ্যাশন (দক্ষিণ) : ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভার কলেজপাড়ায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নিহত জাকির হোসেনের (৫৫) বাড়ি উপজেলার আমিনাবাদ ৫নং ওয়ার্ডে। শনিবার সকাল ১০টায় চরফ্যাশন থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার শিকার হন তিন। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান।

কালাই (জয়পুরহাট) : কালাইয়ে অটোভ্যান উল্টে নিহত যুবক আজিজুল হক (৩৫) আঁওড়া গ্রামের বাসিন্দা। শনিবার বেলা ১১টায় জয়পুরহাট-বগুড়া সড়কের কালাই থানার পশ্চিম পাশে কুকুরের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অটোভ্যান উল্টে যায়। নিহতের বাবা মোতালেবসহ দু’জন আহত হন।

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকার ভরাডোবা বাস স্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় নিহত বৃদ্ধের নাম ছফির উদ্দিন (৬০)। ঢাকাগামী যাত্রীবাহী একটি বাস তাকে চাপা দেয়। তিনি উপজেলার কাদিগড় গ্রামের বাসিন্দা।