চাঁদা না দেয়ার জের

সুবর্ণচরে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

  যুগান্তর রিপোর্ট, নোয়াখালী ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করেছে সন্ত্রাসীরা। এ সময় শিশুটির চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটানো হয়। ওই ছাত্রের নাম নজরুল ইসলাম। সে চর আমান উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। বাবার নাম আমির হোসেন। বাড়ি উপজেলার চর আমান উল্লাহ ইউনিয়নের চর কাজী মোখলেছ গ্রামে। চাঁদা না দেয়ার জের ধরে ইউপি সদস্য আলী আজ্জমের ছেলে জয়নাল আবেদিন দলবল নিয়ে এ অপকর্ম ঘটায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার ঘটনা ঘটলেও তা রোববার জানা যায়।

নির্যাতনের শিকার নজরুল শুক্রবার রাত থেকে মাইজদীর একটি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন। ইউপি সদস্য আলী আজ্জমের ছেলে সন্ত্রাসী জয়নাল আবেদিনের বিরুদ্ধে খুন, চাঁদাবাজিসহ ৮-৯টি মামলা রয়েছে।

এদিকে চর জব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিজাম উদ্দিন যুগান্তরকে জানান, জয়নাল আবেদিন নজরুল ইসলামের মায়ের কাছে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। না দেয়ায় নজরুলের ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার। এ ব্যাপারে সমঝোতার চেষ্টা চলছে।

জানা যায়, জয়নাল আবেদিন পাঁচ দিন আগে ভিকটিমের মা হাছিনা বেগমের কাছে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। হাছিনা চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে স্থানীয় লোকজনকে বিষয়টি জানায়। বৃহস্পতিবার বিকালে বাড়ির পাশে ফুটবল খেলা কেন্দ্র করে জয়নাল আবেদিনের ছেলের সাথে নজরুলের একটু ধাক্কাধাক্কি হয়। শুক্রবার বিকালে নজরুল বাড়ি থেকে স্থানীয় দরবেশ বাজারে গেলে আগে থেকে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা জয়নাল নজরুলকে ধরে নিয়ে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন চালায়, চোখে মরিচের গুঁড়া দেয়। আহত শিশুর চিৎকারে পাশের ব্যবসায়ীরা এগিয়ে এসে শিশুটির বাবাকে খবর দেয়। এরপর নজরুলকে উদ্ধার করে মাইজদীতে নিয়ে ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter