চট্টগ্রামে দুই আসামির স্বীকারোক্তি

পাড়ার বড়ভাইকে চড় মারার প্রতিশোধ নিতেই ইব্রাহিম খুন

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে পাড়ার বড়ভাই-ছোট ভাইয়ের বিরোধের জেরে মো. ইব্রাহিম (১৮) খুনের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার দিন রাতে ইব্রাহিমকে সদরঘাট জুঁই কমিউনিটি সেন্টারের সামনের রাস্তায় একা দেখে রনি কলার ধরে চড়-থাপ্পড় ও কিল-ঘুষি মারতে থাকে। মিরাজসহ অন্যরা ইব্রাহিমকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া মিরাজ (২২) ও রনি (২২) আদালতে ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে এসব তথ্য দিয়েছে। রোববার বিকালে তারা চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মেহনাজ রহমানের আদালতে এ জবানবন্দি প্রদান করে। শুক্রবার রাতে ইব্রাহিম খুন হওয়ার পর চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে শনিবার সন্ধ্যায় পুলিশ জড়িত দু’জনকে গ্রেফতার করে।

সদরঘাট থানার ওসি মো. নেজাম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, ইব্রাহিম হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার দুই ঘাতক হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। এতে তারা ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দেয়। এর আগে তারা পুলিশের কাছে হত্যার দায় স্বীকার এবং হত্যাকাণ্ডের কারণ উল্লেখ করে। তারা বলেছে, সদরঘাটের সাহেবপাড়া এলাকায় কিশোর-তরুণদের একটি গ্রুপের ‘বড়ভাই’ হিসেবে পরিচিত গ্রেফতার হওয়া রনি। একই এলাকায় অপর একটি গ্রুপে নেতৃত্বে ছিল ইব্রাহিম। রনির চেয়ে বয়সে ছোট ইব্রাহিম। দেড় মাস আগে সাহেবপাড়ার কলাবাগান মাঠে ক্রিকেট খেলা নিয়ে রনি ও ইব্রাহিমের মধ্যে ঝগড়া হয়। রনিকে চড় দেয় ইব্রাহিম। বড়ভাই রনিকে চড় দেয়ার অপমান মেনে নিতে না পেরে প্রতিশোধ নেয়ার পরিকল্পনা করে তার গ্র“পের ছেলেরা। শুক্রবার রাতে সদরঘাট জুঁই কমিউনিটি সেন্টারের সামনে ইব্রাহিমকে একা পেয়ে রনি কলার ধরে চড়-থাপ্পড় মারে। এ সময় তার সঙ্গে থাকা মিরাজসহ অন্যরা মিলে ইব্রাহিমকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় জড়িত কয়েকজনের নাম প্রকাশ করেছে মিরাজ ও রনি। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।