ধুনটে জলপাই খাওয়ানোর প্রলোভনে ৪ শিশুকে ধর্ষণ

  যুগান্তর ডেস্ক ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার ধুনটে জলপাই খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে চার শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এক ভ্যানচালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পটুয়াখালীতে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের মামলা হয়েছে। কুমিল্লার মুরাদনগরে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে স্থানীয় মাতব্বররা ধর্ষকের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা নিয়ে ভাগাভাগি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া ধামরাইয়ে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বগুড়া : শেরপুর ও ধুনট সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, অভিযুক্ত ভ্যানচালক জয়নাল আবেদীনের (৫৫) বাড়ি ধুনট উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের গোপালপুর খাদুলি গ্রামে। তার স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করেন। বাড়িতে সে ছাড়া আর কেউ থাকে না।

উঠোনে জলপাই গাছ থাকায় প্রতিবেশী ৭-১০ বছরের শিশুরা তা খাওয়ার লোভে জয়নালের বাড়িতে আসত। এ সুযোগে ৬ ও ৮ সেপ্টেম্বর জলপাই ও অন্য খাবারের প্রলোভনে চার শিশুকে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে জয়নাল। এ ঘটনায় দুই শিশুর বাবা ধুনট থানায় মামলা করেছেন। মঙ্গলবার বিকালে পুলিশ অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীনকে গ্রেফতার করে। বুধবার সে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে ৪ শিশুকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

পটুয়াখালী : পটুয়াখালী সদর উপজেলার ছোটবিঘাই ইউনিয়নের হরতকিবাড়িয়া গ্রামের এক কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে পুলিশ কনস্টেবল সোহান হোসেনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ২৭ আগস্ট পটুয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন ওই ছাত্রী। পিটিশন মামলা নং-৪৭৩/১৯। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য স্থানীয় হাজী মোক্তার আলী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।

কুমিল্লা ও মুরাদনগর : মুরাদনগরে অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে হতদরিদ্র পরিবারের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়–য়া এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে স্থানীয় এক মাতব্বর। উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউপির বাখরাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমান (৬৫) এবং ধর্ষিতা (১১) ওই গ্রামের বাসিন্দা। শুক্রবার এ ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় মাতব্বররা তা ধামাচাপা দিয়ে রাখে।

বুধবার ওই শিশুকে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্য স্থানীয় এক ইউপি সদস্যসহ মাতব্বররা ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে ভাগবাটোয়ারা করেছে বলে এলাকায় গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে।

বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, ধর্ষকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ কিংবা তথ্যপ্রমাণ পাইনি। মাতব্বররা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল কিন্তু খবর পেয়ে অভিযোগ ছাড়াই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় এনে অভিযোগ গ্রহণ করেছি।

দেলদুয়ার (টাঙ্গাইল) : সোমবার রাত ১০টায় উপজেলার লাউহাটি ইউনিয়নের লাউহাটি গ্রামে ৭ম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ওই ছাত্রী জানায়, তার মা থাকেন বিদেশে, বাবা ভ্যানচালক। রাতে ঘরে একা পেয়ে পাশের বাড়ির আবদুল বারেকের বখাটে ছেলে ছানোয়ার (১৬) তার হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় ঘরের বাইরে আরও তিন-চার যুবক ছিল। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা ছানোয়ারের বিরুদ্ধে দেলদুয়ার থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। দেলদুয়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একে সাইদুল হক ভুইয়া জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরই ছানোয়ারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বরিশাল : সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রী নিবাসের সহকারী সুপার ও বিএম কলেজ শিক্ষক পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহিম সরদারের বিরুদ্ধে হলের ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় হলের দেড় শতাধিক ছাত্রী সোমবার রাত ১১টার দিকে হল চত্বরে বিক্ষোভ করে।

পরে বিষয়টি নিয়ে ছাত্রীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন কলেজ অধ্যক্ষ ও শিক্ষক পরিষদের নেতারা। এ বিষয়ে সহকারী হল সুপার আব্দুর রহিম জানান, ছাত্রীরা রুমে রুমে হিটার ব্যবহার করতো। যারা রুমে রান্না করত তারা ক্ষুব্ধ হয়ে এই অভিযোগ করছেন। এ বিষয়ে কলেজের অধ্যাপক কল্পনা রানী নাগকে প্রধান করে চার সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেন জানান অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান সিকদার।

ধামরাই (ঢাকা) : ধামরাইয়ের মান্দারচাপ এলাকায় ৬ বছর বয়সী এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে হৃদয় হোসেন নামে এক কিশোরের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ধামরাই থানায় মামলা করেছে শিশুটির পরিবার। সোমবার উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের মান্দারচাপ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত হৃদয় সোমভাগ ইউনিয়নের মান্দারচাপ গ্রামের মো. সাইফুল ইসলামের ছেলে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত