বড়লেখায় পুকুরে মিলল আ’লীগ নেতার লাশ

  বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আবদুল মতিন (৬০) নামে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার লাশ মঙ্গলবার সকালে পুকুর থেকে উদ্ধার করেছে বড়লেখা থানা পুলিশ। তিনি দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউপির ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছিলেন। তার ছেলে রাজু আহমদের দাবি, পরিকল্পিতভাবে তার বাবাকে হত্যা করে পাশের গ্রামের পুকুরে লাশ ফেলে দেয়া হয়।

পুলিশ, পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রতুলি বাজারসংলগ্ন গাংকুল গ্রামের বাসিন্দা আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল মতিনের সঙ্গে সোমবার রাত এগারোটা পর্যন্ত ছেলে রাজু আহমদের ফোনে যোগাযোগ ছিল। এরপর থেকে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায় ও রাতে তিনি বাড়ি ফেরেননি। পরিবারের লোকজন বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাননি। পরদিন সকালে পাশের দক্ষিণ হরিপুর গ্রামের রহিম উদ্দিনের পুকুরে গোসল করতে গিয়ে আবদুল কাদির নামের এক ব্যক্তির পায়ে অস্বাভাবিক কিছু লাগে। লাশ বুঝতে পেরে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। আবদুল মতিনের স্বজনরা লাশ শনাক্ত করেন।

ছেলে রাজু আহমদ অভিযোগ করে বলেন, ডুবে মারা যাওয়ার মতো গভীর পানি এ পুকুরে ছিল না। দুর্ঘটনাবশত পুকুরে পড়ে যাওয়ারও কোনো আলামত মেলেনি। ঘটনাস্থল থেকে অনেক দূরে তার বাবার ব্যবহৃত একটি জুতা ও গ্যাস লাইট পাওয়া গেলেও মোবাইল ফোনটি মেলেনি। তার দাবি, এটা পরিকল্পিত হত্যা।

থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হয়েছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত