১৮ দিনে আমদানি ৩৯২ টন

মিয়ানমার থেকে সাগরপথে আসছে পেঁয়াজ

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মিয়ানমার থেকে ১৮ দিনে ৩৯২ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। টেকনাফ স্থলবন্দর দিয়ে নৌপথে এসব পেঁয়াজ আনেন ব্যবসায়ীরা। ৩১ আগস্ট এ বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়। ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩৯২ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ স্থলবন্দর পরিচালনায় নিয়োজিত ইউনাইটেড ল্যান্ড পোর্টের সহকারী মহাব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন চৌধুরী।

তিনি আরও জানান, সম্প্রতি ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানিতে উৎসাহিত হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। ভারতীয় পেঁয়াজের জন্য টনপ্রতি ৮৫০ ডলার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। অথচ মিয়ানমার থেকে ৩০০ থেকে ৫০০ ডলারের মধ্যে প্রতি টন পেঁয়াজ আমদানি করা যাচ্ছে। পেঁয়াজ আমদানিতে ব্যবসায়ীদের অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

টেকনাফ সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েসনের সাধারণ সম্পাদক এহতেশামুল হক বাহাদুর জানান, বর্তমানে বাজারমূল্য থেকে আমদানি মূল্য কম হওয়ায় ব্যবসায়ীরা মুনাফা করতে পারছেন। ফলে তারা পেঁয়াজ আমদানির দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। আগেও বিভিন্ন সময়ে এই বন্দর দিয়ে প্রচুর পেঁয়াজ আমদানির রেকর্ড রয়েছে। মিয়ানমার থেকে টেকনাফ বন্দরে পৌঁছতে সর্বোচ্চ ৩ দিন সময় লাগে বলে জানান তিনি। জানা গেছে, পেঁয়াজ আমদানিকারকদের মধ্যে হাশেম এন্টারপ্রাইজ, সাদ্দাম এন্টারপ্রাইজ, হক অ্যান্ড সন্সসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী পেঁয়াজ আমদানি করছেন। আমদানিকারক এমএ হাশেম জানান, বুধবার তার আমদানি করা ১২০ টন পেঁয়াজ নিয়ে একটি জাহাজ বন্দরে ভিড়েছে। মাল খালাস করে ইতিমধ্যে বাজারে ছাড়া হয়েছে। বাজারে দাম সহনীয় হয়ে যাবে বলে মনে করেন তিনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×