কলাপাড়ায় গণধর্ষণ মামলা

জেল থেকে বেরিয়ে আসামিরা গুঁড়িয়ে দিল বাদীর দুই পা

এক আসামি আটক

  পটুয়াখালী (দ.) ও কলাপাড়া প্রতিনিধি ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কলাপাড়া উপজেলায় গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলার আসামিরা এবার লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে বাদীর দুই পা গুঁড়িয়ে দিয়েছে। ধর্ষণ মামলা প্রত্যাহার না করায় বাদীকে বারবার হুমকি-ধামকি দেয়া হচ্ছিল। জেল থেকে বেরিয়ে মঙ্গলবার রাতে তারা গৃহবধূর স্বামী ও মামলার বাদীকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। হাসপাতালে চিকিৎসা নিতেও তাকে বাধা দেয়া হয়। প্রথমে তাকে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে মুমূর্ষু অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আসামি আবুল খায়েরকে আটক করেছে পুলিশ।

বাদী জানান, চাপলিবাজার ইউনিয়ন পরিষদের সামনে রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি হামলার শিকার হন। আসামি শাকিল, আবুল খায়ের, শাহ আলম, মামুন, রবিউলসহ কয়েক যুবক তাকে লোহার রড দিয়ে পেটাতে শুরু করে। এরপর মাটিতে ফেলে তারা তার দুই পা গুঁড়িয়ে দেয়। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলেও সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের মুখে তারা দূরে সরে যায়। তার শরীর থেকে রক্ত বের হলে আসামিরা উল্লাস করে। এ সময় তারা বলে, ‘তোরে মামলা উঠাতে বলছি। আমাগো কথা শুনিসনি হালার পো হালা। আজ তোর রক্ত দিয়ে গোসল করমু।’

বাদী জানান, এরপর রুবেল নামে একজন মোটরসাইকেল ভাড়া করে তাকে বাড়ি পৌঁছে দেন। পরিবারের লোকজন তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেও হামলা করে আসামিরা। চিকিৎসা নিতে তাকে বাধা দেয়া হয়। বাদীর চাচাতো ভাই জানান, চাপলিবাজারে চিকিৎসা না পেয়ে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেও তারা বাধার মুখে পড়েন। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে আমতলীতে জখম দুই পায়ে ব্যান্ডেজ করে রক্তক্ষরণ বন্ধ করা হয়। এরপর তাকে বরিশাল নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×