ধর্ষণের পর শিশু মিমিকে হত্যা

খুলনায় দু’জনের ফাঁসির আদেশ

  খুলনা ব্যুরো ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খুলনায় আফসানা মিমি (১৪) নামে এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় দু’জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। প্রায় এক দশক পর চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় হয়েছে। একই সঙ্গে প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা ধার্য করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক মোহা. মহিদুজ্জামান মামলার রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিল।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছে নগরীর খালিশপুর থানাধীন বাস্তুহারা কলোনির মো. বাবুল হাওলাদার ওরফে কালা বাবুল ও এমদাদ হোসেন। এই মামলায় বাকি চার আসামিকে খালাস দেয়া হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের ১৫ নভেম্বর রাত ৭টার দিকে খালিশপুর থানাধীন বাস্তুহারা কলোনির রোড নং ৯, বাড়ি নং ৪৯৮-এর বাসিন্দা মো. ইমাম হোসেনের ১৪ বছরের শিশুকন্যা আফসানা মিমি দুই টাকা নিয়ে ঝালমুড়ি কিনতে যায়। কিন্তু দীর্ঘ সময় বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পেয়ে ইমাম হোসেন রাতেই খালিশপুর থানায় জিডি করেন। বাস্তুহারা মাদ্রাসার খাদেম আ. কুদ্দুস পরের দিন বেলা ৩টায় আফসানা মিমির লাশ বাস্তুহারা দীঘিতে পেয়ে ইমাম হোসেনকে খবর দেন। ইমাম হোসেন এ ঘটনায় খালিশপুর থানায় মামলা করেন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, এলাকার কালা বাবুল, কাদের ও এমদাদসহ অন্যরা মিমিকে উত্ত্যক্ত করত। ২০১০ সালের ২৩ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খালিশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মোকাদ্দেশ আলি আদালতে ৬ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় ১৮ সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জন সাক্ষ্য দেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×