গফরগাঁওয়ে পুলিশ আসামি সংঘর্ষ গ্রেফতার ৬
jugantor
বাদীর ভাইকে অপহরণ চেষ্টা
গফরগাঁওয়ে পুলিশ আসামি সংঘর্ষ গ্রেফতার ৬

  গফরগাঁও প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলায় হত্যা মামলার আসামিরা বাদীর ভাই জীবন মিয়াকে (১৮) অপহরণের পর হত্যার চেষ্টা করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার অভিযান চালালে অপহরণকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, সংঘর্ষ ও গুলিবিনিময় হয়েছে। সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ৬ জনকে। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে চরআলগী ইউনিয়নের বোরাখালীচরে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৫ মে রাস্তা নির্মাণ নিয়ে চরআলগী ইউনিয়নের বোরাখালীচরে আবুল কালামের সঙ্গে সহোদর জালাল ও হেলালের সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে আবুল কালামকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে সাবিনা খাতুন গফরগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে আসামিরা মামলা প্রত্যাহার করার জন্য বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে আবুল কালামের ছেলে মাদ্রাসাছাত্র জীবনকে অপহরণের পর গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায় হত্যা মামলার আসামি আলামিন। খবর পেয়ে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধারে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ ও অপহরণকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ৬ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় গফরগাঁও থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। ওসি অনুকুল সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বাদীর ভাইকে অপহরণ চেষ্টা

গফরগাঁওয়ে পুলিশ আসামি সংঘর্ষ গ্রেফতার ৬

 গফরগাঁও প্রতিনিধি  
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলায় হত্যা মামলার আসামিরা বাদীর ভাই জীবন মিয়াকে (১৮) অপহরণের পর হত্যার চেষ্টা করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার অভিযান চালালে অপহরণকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, সংঘর্ষ ও গুলিবিনিময় হয়েছে। সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ৬ জনকে। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে চরআলগী ইউনিয়নের বোরাখালীচরে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৫ মে রাস্তা নির্মাণ নিয়ে চরআলগী ইউনিয়নের বোরাখালীচরে আবুল কালামের সঙ্গে সহোদর জালাল ও হেলালের সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে আবুল কালামকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে সাবিনা খাতুন গফরগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে আসামিরা মামলা প্রত্যাহার করার জন্য বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে আবুল কালামের ছেলে মাদ্রাসাছাত্র জীবনকে অপহরণের পর গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায় হত্যা মামলার আসামি আলামিন। খবর পেয়ে পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধারে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ ও অপহরণকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ৬ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় গফরগাঁও থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। ওসি অনুকুল সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।