বিরলে জুট মিলে ভয়াবহ আগুন : দগ্ধ ১২ শ্রমিক

ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির দাবি মালিকের

  দিনাজপুর ও বিরল প্রতিনিধি ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরের বিরলে রূপালী বাংলা জুট মিলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডে পাট ও যন্ত্রাংশসহ ২০০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন মিল মালিক। ১২ শ্রমিককে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল পৌনে ৪টার দিকে বিরল উপজেলার হুসনা নামক স্থানে রূপালী বাংলা জুট মিলে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। নিমেষেই আগুন গোটা মিলে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় জুট মিলে কাজ করছিলেন সাড়ে ৭০০ শ্রমিক। আগুনের লেলিহান শিখা চার দিকে ছড়িয়ে পড়লে মিলের ভেতর শ্রমিকরা চেঁচামেচি ও ছোটাছুটি শুরু করেন। এ সময় কর্মরত শ্রমিকরা মিলের দরজা ও জানালা ভেঙে নিজের জীবন রক্ষার চেষ্টা চালান। অগ্নিকাণ্ডে বেশ কয়েকজন শ্রমিক অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। এদের মধ্যে ১২ জনকে উদ্ধার করে বিরল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন- জামিনী বালা, লিপু, কোরবান আলী, আরজিনা, রহিমা, মাজেদা, আইয়ুব আলী, গোলাম মোস্তফা, মোতাহার, আপন, আমেনা ও খালেদা।

হাসপাতালে অগ্নিদগ্ধরা জানান, অনেকেই মিল থেকে বের হতে পারেননি। তবে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না আসায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো প্রাণহানি হয়েছে কিনা সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

খবর পেয়ে দিনাজপুর ও সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট।

রূপালী বাংলা জুট মিলের স্বত্বাধিকারী বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল লতিফ জানান, মিলে গুদামজাত পাট, পাটজাত পণ্য ও মিলের যন্ত্রাংশসহ ৩০০ কোটি টাকার মালামাল ছিল। প্রাথমিকভাবে তিনি ধারণা করছেন, অগ্নিকাণ্ডে তার ২০০ কোটি টাকার মালামাল ভস্মীভূত হয়েছে।

দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক আকতার হানিফ খান জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলেও পুরো আগুন নেভাতে আরও সময় লাগবে বলে জানান তিনি। তিনি জানান, আগুনের সূত্রপাত প্রাথমিকভাবে নিরূপণ করা না গেলেও ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শটসার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে। তিনি জানান, আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের আগে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা সম্ভব নয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×