রামেকে জরুরি বিভাগ বন্ধ করে ইন্টার্নদের বিক্ষোভ

  রাজশাহী ব্যুরো ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগের পথ বন্ধ করে বিক্ষোভ করেছেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এটিএম এনামুল জহিরের বিচার ও নিজেদের বিরুদ্ধে থাকা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে তারা এ বিক্ষোভ করেন। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা জরুরি বিভাগের প্রবেশ পথে গিয়ে বসে পড়েন। পরে দুপুর দেড়টার দিকে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার গিয়ে ইন্টার্নদের শান্ত করেন। পরে তারা জরুরি বিভাগের সামনে থেকে সরে যান।

বিক্ষোভ চলাকালে হাসপাতালে আসা রোগীরা পড়েন ভোগান্তিতে। বিক্ষোভের এই এক ঘণ্টায় একজন রোগীও হাসপাতালের ভেতরে ঢুকতে পারেননি। এদের মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনায় মারাত্মক আহত এক রোগীকে জরুরি বিভাগের সামনে থেকে ফেরত নিয়ে গিয়ে নগরীর লক্ষ্মীপুর মোড়ের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করতে দেখা যায়।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিলুর রহমানকে কয়েকদফা ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

রামেক ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি মীর্জা কামাল হোসেন জানান, সমস্যা সমাধানের দাবিতে তারা এই বিক্ষোভ করেছেন। আওয়ামী লীগ নেতারা তাদের সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। তাই তারা কর্মবিরতি ছেড়ে ওয়ার্ডে ফিরেছেন। রাতে এ নিয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসক, হাসপাতাল ও জেলা প্রশাসন, শিক্ষক এনামুল জহিরের প্রতিনিধি এবং আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে একটি সভা করে এর সমাধানের কথা রয়েছে বলেও জানান মীর্জা কামাল হোসেন।

১৪ ফেব্রুয়ারি রাতে শিক্ষক এনামুল জহির রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মেয়ের জন্য ওষুধ কিনে নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথে হাসপাতালের ভেতর তার এক নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তাকে মারধর করেন।

বিষয়টি গণমাধ্যমে এলে পরদিন রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কুদরত-ই-খোদা তার আদালতে স্বপ্রণোদিত হয়ে একটি পিটিশন মামলা করেন। এছাড়া রাজশাহীর একজন আইনজীবীও বাদী হয়ে রামেকের ৮ ইন্টার্ন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আবার নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে মারধর এবং তাকে অশ্লীল ভাষায় কথা বলার অভিযোগে হাসপাতাল প্রশাসনের পক্ষ থেকে রাবি শিক্ষক এনামুল জহিরের বিরুদ্ধেও আদালতে একটি মামলা করা হয়েছে। কাল সব মামলার শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter