শ্রীপুরে বাবাকে হত্যার পর পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুরে বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার পর ট্রিপল নাইনে (৯৯৯) ফোন করে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে এক যুবক। উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের লতিফপুর গ্রামে সোমবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের স্বজনরা জানান, হত্যাকারী যুবক মানসিক সমস্যায় ভুগছিল। নিহত আবদুল ওয়াদুদ ওরফে বাবুল মাস্টার (৫৫) কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও ইউনিয়নের কোহিনুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও একই গ্রামের সিরাজ ফকিরের ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে ইমরান ফকিরকে (২৫) গ্রেফতার দেখিয়েছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। নিহতের বড় ভাই জেএম শামসুল আলম জানান, ওয়াদুদের এক মেয়ে ও এক ছেলে। মেয়ের বিয়ে হয়েছে। ছেলে ইমরান বেসরকারি ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে ইংরেজিতে অনার্সে পড়ে। কিছুদিন আগে তার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। গোসিংগা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড সদস্য খোরশেদ আলম জানান, ইমরান মানসিক ভারসাম্যহীন। গত দেড় বছর ধরে বাড়ির পাশের রাস্তায় দাঁড়িয়ে পথচারীদের সঙ্গে অসামঞ্জস্য কথাবার্তা ও আচরণ করে আসছে। ইউনিভার্সিটির বন্ধুদের সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যেতে প্রায়ই বাবুল মাস্টারের কাছ থেকে টাকা নিত। টাকা দিতে না পারলে বাবা-মার সঙ্গে ঝগড়া হতো। কয়েক মাস আগে দু’বার তার মাকে মারধর করে। টাকা না পেলেই বাবাকেও মারধর করত। এজন্য বাবুল মাস্টার ঘরের দরজা আটকে ঘুমাতেন। সম্ভবত ঘটনার দিন তিনি দরজা আটকাননি। এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার ওসি লিয়াকত আলী বলেন, সোমবার মধ্যরাতে বাবা-ছেলের মধ্যে পড়ালেখার খরচের টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় ছেলে তার বাবাকে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে। পরে নিজেই ফোন করে পুলিশকে ঘটনা জানায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×