মন্দবাগ ট্রেন দুর্ঘটনার তদন্ত রিপোর্ট জমা

দায়ী তূর্ণা নিশীথার চালক সহকারী চালক ও গার্ড

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা মন্দবাগে ট্রেন দুর্ঘটনায় রেলপথ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির রিপোর্ট জমা দেয়া হয়েছে। রিপোর্টে দুর্ঘটনার জন্য তূর্ণা নিশীথার চালক-সহকারী চালক ও গার্ডকে দায়ী করা হয়েছে। এর আগে রোববার চট্টগ্রাম রেলওয়ে বিভাগীয় কর্মকর্তাদের করা তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়া হয়। ওই রিপোর্টেও তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের চালক-সহকারী চালক ও গার্ডকে সরাসরি দায়ী করা হয়। সোমবার রেলপথ সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেনের কাছে রিপোর্টটি জমা দেন মন্ত্রণালয় কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা।

রেলপথ সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন জানান, রোববার চট্টগ্রাম বিভাগীয় রেলওয়ে কর্মকর্তাদের করা তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর সোমবার মন্ত্রণালয় থেকে করা তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাওয়া গেছে। দুটি রিপোর্টই আমার কাছে রয়েছে। বাকি রিপোর্টগুলো দু-একদিনের মধ্যে পাওয়া যাবে। ২০ নভেম্বর রেলপথমন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন এসব রিপোর্ট নিয়ে হয়তো গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলবেন।

রিপোর্ট অনুযায়ী দায়ীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাদের সর্বোচ্চ চাকরিচ্যুতসহ বিধি অনুযায়ী সব ধরনের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।

মন্ত্রণালয় থেকে গঠিত তদন্ত কমিটির আহবায়ক রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (আইন ও ভূমি) মো. রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে চার সদস্যের কমিটির সদস্যরা দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একাধিকবার কথা বলেছেন। রফিকুল ইসলাম জানান, তদন্তের স্বার্থে তারা বারবার ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাদের তদন্ত রিপোর্টটি সোমবার রেল সচিবের কাছে জমা দেয়া হয়েছে। ভয়াবহ দুর্ঘটনার জন্য তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের চালক, সহকারী চালক ও গার্ডকে দায়ী করে প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে।

এদিকে রিপোর্টে বলা হয়েছে, দুর্ঘটনার পর তদন্ত প্রতিনিধি দল কসবা মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশন এলাকা পরিদর্শন করে। তারা কন্ট্রোলরুম, সিগন্যাল পয়েন্টসহ দুর্ঘটনাস্থল একাধিকবার ঘুরে দেখেছেন। কমিটির অন্য তিন সদস্য প্রধান সংকেত ও টেলিযোগাযোগ কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (প্রশাসন) আলমগীর হোসেন ও রেলওয়ে যুগ্ম মহাপরিচালক (অপারেশন) রাশেদা সুলতানা গণি।

তাদের স্বাক্ষরিত রিপোর্টে বলা হয়, তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের চালক তাসের উদ্দিন ও সহকারী চালক অপু দে চার-চারটি সংকেত অমান্য করে ট্রেনটি চালাচ্ছিলেন। চট্টগ্রাম থেকে আসা তূর্ণা নিশীথা মন্দবাগ স্টেশনে প্রবেশের আগে আউটার, হোম, স্টার্টার ও এডভান্স স্টার্টার নামের চারটি বিশেষ সংকেত অমান্য করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×