ঘুষ না দেয়ায় সাংবাদিককে ‘মিথ্যা’ মামলায় অভিযুক্ত

  রাজশাহী ব্যুরো ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মামলা

বসতভিটা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে রাজশাহীর ফটোসাংবাদিক আসাদুজ্জামান আসাদ ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে মামলা হয়েছিল।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা নগরীর রাজপাড়া থানার এসআই টিএম সেলিম রেজা দাবি করেছিলেন ২০ হাজার টাকা। ফটোসাংবাদিক আসাদ তা দিতে পারেননি। তাই তদন্ত না করেই মামলাটিতে আসাদ ও তার পরিবারের সদস্যদের অভিযুক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে এসআই সেলিম রেজা বলেন, ঘুষ দাবি করার মতো কিছু ঘটেনি। আমি তদন্তে যা পেয়েছি, সেটাই অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছি। আর আমার আগেও একজন কর্মকর্তা মামলাটির তদন্ত করেছেন। ঘুষ চাইলে তিনি চাইতে পারেন। আমি চাইনি।

অপরদিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার হুমায়ুন কবীরের কাছে লিখিতভাবে ঘুষ দাবির বিষয়ে অভিযোগ করেছেন আসাদ। তিনি ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন রাজশাহী শাখার সভাপতি। তার দাবি, মামলাটি মিথ্যা। তিনি ঘুষ না দিয়ে তদন্ত কর্মকর্তাকে বলেছিলেন, সরেজমিন তদন্ত করে যা পাবেন তাই দেবেন। কিন্তু তদন্ত কর্মকর্তা ঘটনাস্থলেই যাননি।

অভিযোগে বলা হয়েছে, নগরীর কাজিহাটা মৌজায় ছয় কাঠার পৈতৃক ভিটায় আসাদ ও তার পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘদিন বসবাস করছেন। হঠাৎ ২০০২ সালে নগরীর গণকপাড়া এলাকার চিহ্নিত ‘ভূমিদস্যু’ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ভিটাটি তার নিজের বলে দাবি করে দখলে নিতে যায়। জাহিদুল তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে গিয়ে আসাদের পরিবারকে উচ্ছেদের চেষ্টা করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আসাদের বাবা আশরাফ হোসেন ২০০২ সালে আদালতে মামলা করেন। জমিটি নিয়ে নিু আদালত এবং উচ্চ আদালতে মামলা চলমান।

তারপরেও জাহিদুল ইসলামের চাচাতো ভাই মেসবাহ উদ্দিন বিভিন্ন সময় তাদের ভিটায় গিয়ে উচ্ছেদের হুমকি দিতে থাকেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তাদের হেনস্থা করতে চলতি বছরের ১০ জুন মেসবাহ উদ্দিন আদালতে একটি মামলা করেন। মামলায় আসাদ ও তার এক ভাই এবং চার বোনকে আসামি করা হয়। মামলায় ১৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ করা হয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×