শীর্ষ ৩ রফতানিকারক দেশে চালের দাম নিম্নমুখী

  যুগান্তর ডেস্ক ৩০ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের শীর্ষ তিন চাল রফতানিকারক দেশে কমছে চালের দাম। ভারত, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামে গত সপ্তাহে নিত্যপণ্যটির দাম নিম্নমুখী ছিল। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সৃষ্ট মহামারীর কারণে রফতানিযোগ্য চালের দাম কমে এসেছে। খবর ইকোনমিক টাইমস।

এশিয়া ও আফ্রিকার বাজারে আমদানি করা চালের বেশির ভাগ জোগান দেয় এ তিন দেশ। গত সপ্তাহে ভারত ও থাইল্যান্ডে রফতানিযোগ্য চালের দাম কমে এসেছে। রফতানি সাময়িক স্থগিত করায় পণ্যটির দাম নিয়ে তথ্য প্রকাশ করেনি ভিয়েতনাম।

গত সপ্তাহে ভারতের বাজারে রফতানিযোগ্য ৫ শতাংশ ভাঙা চাল টনপ্রতি ৩৬১-৩৬৫ ডলারে বিক্রি হয়েছে। আগের সপ্তাহেও খাদ্যপণ্যটি টনপ্রতি ৩৬৩-৩৬৭ ডলারে বিক্রি হয়েছিল। সেই হিসাবে এক সপ্তাহে বিশ্বের শীর্ষ চাল রফতানিকারক দেশ ভারতের বাজারে খাদ্যপণ্যটির দাম কমেছে টনে ২ ডলার। প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতজুড়ে লকডাউন চলছে। মানুষ কার্যত ঘরবন্দি জীবন কাটাচ্ছে। এটা চালের রফতানি মূল্যে পতনের বড় একটি কারণ বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা।

করোনাভাইরাসের পাশাপাশি তীব্র খরায় ভুগছে পুরো থাইল্যান্ড। দেশটির চাল উৎপাদনকারী অঞ্চলগুলোয় তাপমাত্রা কিছুটা বেশি। ব্যাহত হয়েছে উৎপাদন ও সরবরাহ। এর জের ধরে দেশটিতে চালের দাম বেড়ে ছয় মাসের সর্বোচ্চে উঠেছিল। গত সপ্তাহে থাইল্যান্ডে রফতানিযোগ্য ৫ শতাংশ ভাঙা চাল টনপ্রতি ৪৬৮-৪৯৫ ডলারে বিক্রি হয়েছে। আগের সপ্তাহে খাদ্যপণ্যটি টনপ্রতি ৪৮০-৫০৫ ডলারে বিক্রি হয়েছিল। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ চাল রফতানিকারক দেশ থাইল্যান্ডে রফতানিযোগ্য চালের দাম কমেছে টনে সর্বোচ্চ ১২ ডলার।

এদিকে মহামারীর কারণে চাল রফতানিতে নতুন চুক্তি সই বন্ধ রেখেছে খাদ্যপণ্যটির তৃতীয় শীর্ষ রফতানিকারক দেশ ভিয়েতনাম। এ কারণে সর্বশেষ সপ্তাহে দেশটির বাজারে চালের দাম নিয়ে তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত