গারো মা-মেয়ে হত্যা

ইস্টার সানডে উদযাপনের টাকার জন্য খুন করা হয়

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ মার্চ ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজধানীর গুলশানের কালাচাঁদপুরে নিজ বাসায় গারো সম্প্রদায়ের দুই নারী হত্যার ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হল- সঞ্জীব চিরান (২১), তার বন্ধু রাজু সাংমা ওরফে রাসেল (২৪), প্রবীন (১৯) ও শুভ চিসিম ওরফে শান্ত (১৮)। বৃহস্পতিবার দুপুরে কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান। তিনি বলেন, আসন্ন ‘ইস্টার সানডে’ উদযাপনের টাকা জোগাতে গারো মা-মেয়েকে খুন করেছে সঞ্জীব ও তার বন্ধুরা। এক মাস আগে সঞ্জীব ও তার তিন বন্ধু মিলে হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করে। গত ২০ মার্চ গুলশানের কালাচাঁদপুরে শিশু মালঞ্চ স্কুল রোডে ক-৫৮ নম্বর বাড়ির চতুর্থতলার সুজাতা চিরান (৪০) ও তার মা বেসেত চিরান নির্মমভাবে খুন হন।

সংবাদ সম্মেলনে মুফতি মাহমুদ খান বলেন, হত্যাকারীরা ঘটনার পর শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে যায়। তারা আত্মগোপন করতে অবৈধপথে ভারতে যাওয়ার পরিকল্পনাও করেছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব তাদের গ্রেফতার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে উত্তরার আবদুল্লাহপুরে অবস্থিত একটি বাস কাউন্টারের পেছন থেকে হত্যার কাজে ব্যবহৃত একটি ছোরা উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে আসামিরা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানায়, সঞ্জীবের খালা নিহত সুজাতার পরিবারের সবাই চাকরিজীবী। তাই তাদের কাছে পাঁচ-ছয় লাখ টাকা থাকতে পারে। মূলত ওই টাকা চুরি করে তাদের আসন্ন ধর্মীয় উৎসব (ইস্টার সানডে) উদযাপন করতে চেয়েছিল সঞ্জীব ও তার বন্ধুরা।

তিনি বলেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৯ মার্চ সঞ্জীব, শান্ত ও প্রবীন ঢাকায় আসে এবং কুড়িলে তাদের আরেক বন্ধু রাজুর সঙ্গে দেখা করে। রাজুর বাসায় স্থান-সংকট থাকায় তারা উত্তরায় আরেক বন্ধুর বাসায় রাত যাপন করে। পরের দিন সকালে সঞ্জীব, শান্ত ও প্রবীন কুড়িলে রাজুর সঙ্গে দেখা করে পরিকল্পনার কথা জানায়। এরপর রাজুর বাসা থেকে একটি ছোরা নিয়ে কালাচাঁদপুরে সুজাতাদের বাসায় যায় তারা। প্রথমে রাজু ও প্রবীন ওই বাসায় গিয়ে সুজাতা, মেয়ে মায়াবী ও তার মা বেসেতকে দেখে ফিরে এসে সঞ্জীবকে জানায়। এরপর আসামিরা পাঁচ-ছয় ঘণ্টা বাইরে ঘোরাঘুরি করে। বিকাল ৩টার দিকে সঞ্জীবসহ তার বন্ধুরা সুজাতার বাসায় প্রবেশ করে। সেখানে হালকা নাশতা খাওয়ার পর সঞ্জীব তার খালা সুজাতাকে ২০০ টাকা দেয় এবং দেশি মদ আনতে বলে। তখন সুজাতার মেয়ে মায়াবী তার কর্মস্থলে চলে যান। পরে সবাই মিলে মদ পান করে। সুজাতা মদ্যপ হয়ে বিছানায় পড়ে যান। সঞ্জীব ও তার বন্ধুরা তখন চুরির প্রস্তুতি নেয়। এ সময় সুজাতার মা বেসেত (সঞ্জীবের নানী) বাসায় ফিরে এলে চুরির কাজ বাধাগ্রস্ত হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বেসেত চিরানকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে আসামিরা। পরে পাশের ঘরে বেহুঁশ সুজাতার ওপর সঞ্জীব চড়ে বসে। রাজু মুখে বালিশ চেপে ধরে। সঞ্জীব ছোরা দিয়ে শরীরে ও গলায় আঘাত করে। এরপর ঘরে খোঁজাখুঁজি করে টাকা না পেয়ে আসামিরা উত্তরায় ফিরে যায়। সেখান থেকে চলে যায় নালিতাবাড়ীতে। এদিকে এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার নথিপত্র বৃহস্পতিবার আদালতে এলে তা দেখেন ঢাকা মহানগর হাকিম নুরন নাহার ইয়াসমিন। একই সঙ্গে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৬ এপ্রিল দিন ধার্য করেন তিনি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×