গৃহবধূ গ্রামছাড়া প্রেমিকের শাস্তি শুধু চড়-থাপ্পড়
jugantor
পরকীয়া নিয়ে গ্রাম্য সালিশ
গৃহবধূ গ্রামছাড়া প্রেমিকের শাস্তি শুধু চড়-থাপ্পড়

  নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  

১১ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পরকীয়া নিয়ে গ্রাম্য সালিশ

পরকীয়ার কারণে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে এক গৃহবধূকে গ্রামছাড়া করেছেন স্থানীয় মাতব্বররা।

আর গৃহবধূর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ায় যুবককে দেয়া হয়েছে চড়থাপ্পড়। বৃহস্পতিবার উপজেলার মাইলজানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, মাইলজানী গ্রামের এক অটো চালকের স্ত্রীর সঙ্গে সহবতপুর গ্রামের দীপক সাহার দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া চলছিল। বৃহস্পতিবার ভোরে অটো চালক কাজের উদ্দেশ্যে বরংগাইল চলে যান। এ সুযোগে প্রেমিক দীপক সাহা অটোচালকের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়।

এলাকার লোকজন টের পেয়ে তাদেরকে আটক করে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ঘটনাস্থলে পৌঁছে দীপককে চড়থাপ্পড় দিয়ে ছেড়ে দেন।

এ ঘটনায় এদিন বিকালেই সালিশ বসে। সালিশে মাতব্বররা অটোচালক ও তার স্ত্রীকে গ্রামছাড়ার রায় দেন। রায় ঘোষণার পরই গৃহবধূকে তার স্বামী অন্যত্র পাঠিয়ে দেন। ৭ দিনের মধ্যেই অটো চালক অন্যত্র চলে যাবেন।

একজন গ্রাম্য মাতব্বর এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গৃহবধূকে গ্রামছাড়ার পক্ষে আমি ছিলাম না। অনৈতিক কাজের শাস্তি চড়থাপ্পড় কিনা- জানতে চাইলে ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মো. আশেক আলী বলেন, আমি কোনো শাস্তি দেইনি।

তবে সবার উপস্থিতিতে ওই যুবককে তার বাবা-মায়ের জিম্মায় দেয়া হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে দীপক সাহা পলাতক রয়েছে। অন্যদিকে মাতব্বররা প্রভাবশালী হওয়ায় গৃহবধূর স্বামী মামলা করতে সাহস পাচ্ছে না। জানতে চাইলে নাগরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলম চাঁদ বলেন, এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পরকীয়া নিয়ে গ্রাম্য সালিশ

গৃহবধূ গ্রামছাড়া প্রেমিকের শাস্তি শুধু চড়-থাপ্পড়

 নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি 
১১ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
পরকীয়া নিয়ে গ্রাম্য সালিশ
প্রতীকী ছবি

পরকীয়ার কারণে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে এক গৃহবধূকে গ্রামছাড়া করেছেন স্থানীয় মাতব্বররা।

আর গৃহবধূর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ায় যুবককে দেয়া হয়েছে চড়থাপ্পড়। বৃহস্পতিবার উপজেলার মাইলজানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, মাইলজানী গ্রামের এক অটো চালকের স্ত্রীর সঙ্গে সহবতপুর গ্রামের দীপক সাহার দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া চলছিল। বৃহস্পতিবার ভোরে অটো চালক কাজের উদ্দেশ্যে বরংগাইল চলে যান। এ সুযোগে প্রেমিক দীপক সাহা অটোচালকের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়।

এলাকার লোকজন টের পেয়ে তাদেরকে আটক করে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ঘটনাস্থলে পৌঁছে দীপককে চড়থাপ্পড় দিয়ে ছেড়ে দেন।

এ ঘটনায় এদিন বিকালেই সালিশ বসে। সালিশে মাতব্বররা অটোচালক ও তার স্ত্রীকে গ্রামছাড়ার রায় দেন। রায় ঘোষণার পরই গৃহবধূকে তার স্বামী অন্যত্র পাঠিয়ে দেন। ৭ দিনের মধ্যেই অটো চালক অন্যত্র চলে যাবেন।

একজন গ্রাম্য মাতব্বর এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গৃহবধূকে গ্রামছাড়ার পক্ষে আমি ছিলাম না। অনৈতিক কাজের শাস্তি চড়থাপ্পড় কিনা- জানতে চাইলে ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মো. আশেক আলী বলেন, আমি কোনো শাস্তি দেইনি।

তবে সবার উপস্থিতিতে ওই যুবককে তার বাবা-মায়ের জিম্মায় দেয়া হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে দীপক সাহা পলাতক রয়েছে। অন্যদিকে মাতব্বররা প্রভাবশালী হওয়ায় গৃহবধূর স্বামী মামলা করতে সাহস পাচ্ছে না। জানতে চাইলে নাগরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলম চাঁদ বলেন, এ ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন