ময়মনসিংহে তরুণকে পিটিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা
jugantor
ময়মনসিংহে তরুণকে পিটিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা

  ময়মনসিংহ ব্যুরো  

১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তুচ্ছ ঘটনায় ময়মনসিংহ নগরীর আকুয়া এলাকায় অয়ন (২০) নামে এক তরুণকে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। নিহত অয়ন আকুয়া মড়লপাড়া এলাকার মৃত আবদুল খালেকের ছেলে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ইমন নামে এক তরুণকে আটক করেছে। হত্যার সঙ্গে জড়িত অন্যরা শিগগিরই ধরা পড়বে বলে জানান কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, আকুয়া এলাকার বাসিন্দা মৃত আবদুল খালেকের ছেলে অয়নের সঙ্গে স্থানীয় সাকিব নামে এক বখাটের তুচ্ছ ঘটনা (ছোটভাই হিসেবে বড়ভাইকে সম্মান না জানানো) নিয়ে বুধবার বাকবিতণ্ডা হয়। এর জেরে অয়ন তাকে চড়থাপ্পড় মারে। এ ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই বৃহস্পতিবার ইফতারের পর ওঁৎপেতে থাকে সাকিবসহ ৮-৯ জন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে অয়নকে রাস্তায় পেয়ে ধাওয়া করে আকুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে হত্যার পর পালিয়ে যায়। তার ডাক-চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। পুলিশ জানায়, নিহত অয়নের বিরুদ্ধে অপহরণ ও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে নিহত অয়নের চাচা আবদুল বারেক বাদী হয়ে স্থানীয় ৯ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করে। পুলিশ শুক্রবার ইমনকে গ্রেফতার করে।

ময়মনসিংহে তরুণকে পিটিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা

 ময়মনসিংহ ব্যুরো 
১৬ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তুচ্ছ ঘটনায় ময়মনসিংহ নগরীর আকুয়া এলাকায় অয়ন (২০) নামে এক তরুণকে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। নিহত অয়ন আকুয়া মড়লপাড়া এলাকার মৃত আবদুল খালেকের ছেলে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ইমন নামে এক তরুণকে আটক করেছে। হত্যার সঙ্গে জড়িত অন্যরা শিগগিরই ধরা পড়বে বলে জানান কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, আকুয়া এলাকার বাসিন্দা মৃত আবদুল খালেকের ছেলে অয়নের সঙ্গে স্থানীয় সাকিব নামে এক বখাটের তুচ্ছ ঘটনা (ছোটভাই হিসেবে বড়ভাইকে সম্মান না জানানো) নিয়ে বুধবার বাকবিতণ্ডা হয়। এর জেরে অয়ন তাকে চড়থাপ্পড় মারে। এ ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই বৃহস্পতিবার ইফতারের পর ওঁৎপেতে থাকে সাকিবসহ ৮-৯ জন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে অয়নকে রাস্তায় পেয়ে ধাওয়া করে আকুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে হত্যার পর পালিয়ে যায়। তার ডাক-চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। পুলিশ জানায়, নিহত অয়নের বিরুদ্ধে অপহরণ ও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে নিহত অয়নের চাচা আবদুল বারেক বাদী হয়ে স্থানীয় ৯ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করে। পুলিশ শুক্রবার ইমনকে গ্রেফতার করে।