চট্টগ্রামে হতদরিদ্র পরিবারে হাইজিন কিট বিতরণ
jugantor
চট্টগ্রামে হতদরিদ্র পরিবারে হাইজিন কিট বিতরণ

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে নগরীর বাকলিয়া থানাধীন তুলাতলী এলাকার হাফেজনগর ও তক্তারপুল এলাকার হতদরিদ্র, গার্মেন্টস শ্রমিক, দিনমজুর, রিকশা শ্রমিক, কাজের বুয়া, প্রতিবন্ধী ও পাঁচ বছরের নিচে শিশু আছে এমন ৯০ পরিবারের মাঝে হাইজিন কিট বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এপি চট্টগ্রাম আর্বান (কর্ণফুলী মেট্রো) আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি হাইজিন কিট বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের এপি ম্যানেজার রবার্ট কমল সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক সুজন বড়ুয়া, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের প্রোগ্রাম অফিসার খ্রীস্টপার কুইয়া, শিশু সুরক্ষা অফিসার অশেষ রেমা ও জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার শারমিন আক্তার।

সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, করোনা একটি ঘাতক মহামারী। এ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হলে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সাবান ও পানি দিয়ে ঘন ঘন হাত ধোয়ার পাশাপাশি অ্যালকোহলমুক্ত স্যানিটাইজার দিয়ে তালুসহ হাত পরিষ্কার রাখতে হবে। হাঁচি বা কাশি দেয়ার সময় হাতের কনুইয়ের ভাঁজে বা টিস্যু দিয়ে নাক ঢাকতে হবে। ব্যবহৃত টিস্যুটি দ্রুত বন্ধ বিনে ফেলতে হবে। জনগণকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে। করোনা থেকে বাঁচতে হলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কোনো বিকল্প নেই।

চট্টগ্রামে হতদরিদ্র পরিবারে হাইজিন কিট বিতরণ

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
১৬ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে নগরীর বাকলিয়া থানাধীন তুলাতলী এলাকার হাফেজনগর ও তক্তারপুল এলাকার হতদরিদ্র, গার্মেন্টস শ্রমিক, দিনমজুর, রিকশা শ্রমিক, কাজের বুয়া, প্রতিবন্ধী ও পাঁচ বছরের নিচে শিশু আছে এমন ৯০ পরিবারের মাঝে হাইজিন কিট বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এপি চট্টগ্রাম আর্বান (কর্ণফুলী মেট্রো) আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি হাইজিন কিট বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের এপি ম্যানেজার রবার্ট কমল সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক সুজন বড়ুয়া, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের প্রোগ্রাম অফিসার খ্রীস্টপার কুইয়া, শিশু সুরক্ষা অফিসার অশেষ রেমা ও জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার শারমিন আক্তার।

সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, করোনা একটি ঘাতক মহামারী। এ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হলে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সাবান ও পানি দিয়ে ঘন ঘন হাত ধোয়ার পাশাপাশি অ্যালকোহলমুক্ত স্যানিটাইজার দিয়ে তালুসহ হাত পরিষ্কার রাখতে হবে। হাঁচি বা কাশি দেয়ার সময় হাতের কনুইয়ের ভাঁজে বা টিস্যু দিয়ে নাক ঢাকতে হবে। ব্যবহৃত টিস্যুটি দ্রুত বন্ধ বিনে ফেলতে হবে। জনগণকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে। করোনা থেকে বাঁচতে হলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কোনো বিকল্প নেই।