বালিয়াকান্দিতে তিন দিনের শিশুকে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি
jugantor
বালিয়াকান্দিতে তিন দিনের শিশুকে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি

  বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি  

২৩ জুন ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শিশু

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে এক প্রতিবন্ধী নারীর ৩ দিন বয়সী এক কন্যাসন্তান বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার সকালে উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের তুলশীবরাট গ্রামে এ শিশু বিক্রির ঘটনা ঘটে।

শিশুর দাদি জমিরন বিবি জানান, তার ছেলে শাহিবুল ও পুত্রবধূ দু’জনই প্রতিবন্ধী। তারা সন্তানদের খাবার জোগাতে পারে না। তাই সাতক্ষীরার এক পরিচিত ব্যক্তিকে শিশুটিকে দেয়া হয়েছে।

তবে কত টাকার বিনিময়ে দেয়া হয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সে খুশি হয়ে যা দিয়েছে। শিশুর চাচি আম্বিয়া বেগম শিশুটিকে অন্যের হাতে তুলে দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন।

তবে বিক্রির বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, কত টাকা নেয়া হয়েছে তা তার ভাসুর হাবিল শেখ বলতে পারবেন।

ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ জানান, এর আগে ওই প্রতিবন্ধী দম্পতির একটি কন্যাসন্তান পরিবারের লোকজন ২০ হাজার টাকায় উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের বেরুলী গ্রামে বিক্রি করে দিয়েছে বলে অভিযোগ আছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, মানবশিশু বিক্রি অপরাধ। যদি কেউ লালন-পালনের জন্য নিয়ে থাকে সেটা আইনানুযায়ী নেয়া উচিত ছিল। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেব।

বালিয়াকান্দিতে তিন দিনের শিশুকে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি

 বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি 
২৩ জুন ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
শিশু
ফাইল ছবি

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে এক প্রতিবন্ধী নারীর ৩ দিন বয়সী এক কন্যাসন্তান বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার সকালে উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের তুলশীবরাট গ্রামে এ শিশু বিক্রির ঘটনা ঘটে।

শিশুর দাদি জমিরন বিবি জানান, তার ছেলে শাহিবুল ও পুত্রবধূ দু’জনই প্রতিবন্ধী। তারা সন্তানদের খাবার জোগাতে পারে না। তাই সাতক্ষীরার এক পরিচিত ব্যক্তিকে শিশুটিকে দেয়া হয়েছে।

তবে কত টাকার বিনিময়ে দেয়া হয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সে খুশি হয়ে যা দিয়েছে। শিশুর চাচি আম্বিয়া বেগম শিশুটিকে অন্যের হাতে তুলে দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন।

তবে বিক্রির বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, কত টাকা নেয়া হয়েছে তা তার ভাসুর হাবিল শেখ বলতে পারবেন।

ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ জানান, এর আগে ওই প্রতিবন্ধী দম্পতির একটি কন্যাসন্তান পরিবারের লোকজন ২০ হাজার টাকায় উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের বেরুলী গ্রামে বিক্রি করে দিয়েছে বলে অভিযোগ আছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, মানবশিশু বিক্রি অপরাধ। যদি কেউ লালন-পালনের জন্য নিয়ে থাকে সেটা আইনানুযায়ী নেয়া উচিত ছিল। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেব।