টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ১৬ আগস্ট গণশুনানি
jugantor
সিনহা হত্যা
টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ১৬ আগস্ট গণশুনানি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৩ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের মৃত্যুর ঘটনায় গণশুনানির আয়োজন করা হয়েছে। ১৬ আগস্ট সকাল ১০টায় টেকনাফের শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জের কার্যালয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে এ শুনানির আয়োজন করা হয়েছে। কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্য শাজাহান আলী স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তিতে বুধবার এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা রাশেদ খান। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। তদন্তের স্বার্থে টেকনাফের বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত আলীসহ ১৬ পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সিনহা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি মামলা করে র‌্যাব।

৫ আগস্ট কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন মেজর (অব.) সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এই মামলায় ৭ পুলিশ সদস্য আত্মসমর্পণ করেন। এছাড়া হত্যাকাণ্ডে সম্পক্তৃতার অভিযোগে র‌্যাব আরও তিনজনকে গ্রেফতার করে। এরই মধ্যে প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সিনহা হত্যা

টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ১৬ আগস্ট গণশুনানি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৩ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের মৃত্যুর ঘটনায় গণশুনানির আয়োজন করা হয়েছে। ১৬ আগস্ট সকাল ১০টায় টেকনাফের শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জের কার্যালয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে এ শুনানির আয়োজন করা হয়েছে। কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্য শাজাহান আলী স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তিতে বুধবার এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা রাশেদ খান। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। তদন্তের স্বার্থে টেকনাফের বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত আলীসহ ১৬ পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সিনহা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি মামলা করে র‌্যাব।

৫ আগস্ট কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন মেজর (অব.) সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এই মামলায় ৭ পুলিশ সদস্য আত্মসমর্পণ করেন। এছাড়া হত্যাকাণ্ডে সম্পক্তৃতার অভিযোগে র‌্যাব আরও তিনজনকে গ্রেফতার করে। এরই মধ্যে প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।