মাদারীপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ : আহত ১০
jugantor
মাদারীপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ : আহত ১০

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

১৪ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন।

এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হন বলে স্থানীয়দের দাবি। সংঘর্ষ চলাকালে প্রায় অর্ধশত ককটেল বিস্ফোরণ হয়। এ সময় উভয়পক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় ইউনুস চৌকিদার ও লালমিয়া মাতুব্বরের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে দু’পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

উভয়পক্ষের দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় আশপাশের এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে প্রায় অর্ধশত ককটেল বিস্ফোরিত হয়। উভয়পক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়। সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের লোকজন লুৎফর হাওলাদারকে (৪৫) কুপিয়ে জখম করে। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। লুৎফর হাওলাদার গাছবাড়িয়া এলাকার ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে। আহতরা গ্রেফতারের ভয়ে হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে পালিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। সদর থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষের পর গ্রেফতার আতঙ্কে পুরো এলাকা পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে।

এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাদারীপুর সদর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, লাশ উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান সাংবাদিকদের জানান, নিহতের শরীরের পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মাদারীপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১ : আহত ১০

 টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
১৪ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন।

এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হন বলে স্থানীয়দের দাবি। সংঘর্ষ চলাকালে প্রায় অর্ধশত ককটেল বিস্ফোরণ হয়। এ সময় উভয়পক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় ইউনুস চৌকিদার ও লালমিয়া মাতুব্বরের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে দু’পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

উভয়পক্ষের দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় আশপাশের এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে প্রায় অর্ধশত ককটেল বিস্ফোরিত হয়। উভয়পক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়। সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের লোকজন লুৎফর হাওলাদারকে (৪৫) কুপিয়ে জখম করে। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। লুৎফর হাওলাদার গাছবাড়িয়া এলাকার ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে। আহতরা গ্রেফতারের ভয়ে হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে পালিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। সদর থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষের পর গ্রেফতার আতঙ্কে পুরো এলাকা পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে।

এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাদারীপুর সদর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, লাশ উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান সাংবাদিকদের জানান, নিহতের শরীরের পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।