রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পানি নিয়ে সংঘর্ষে যুবকের মৃত্যু
jugantor
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পানি নিয়ে সংঘর্ষে যুবকের মৃত্যু

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

টেকনাফ চাকমারকুল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে খাবার পানি নেয়া কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে দু’পক্ষের দ্বন্দ্বের ঘটনা ঘটেছে। পরে এক পক্ষের হামলায় রোহিঙ্গা যুবক নুর আলমের (২৫) মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় চাকমারকুলের আই ব্লকের বাসিন্দা মো. হোসেন, রুবেল, জামির, মজি উল্লাহ ও আবদুল মালেককে গ্রেফতার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন।

কক্সবাজার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এবিপিএন)-১৬-এর কমান্ডিং অফিসার মো. হেমায়েতুল ইসলাম জানান, পানি নেয়া কেন্দ্র করে চাকমারকুলের ২১ নম্বর ক্যাম্পের আই ব্লকে রোহিঙ্গা শরণার্থী কাজলীর সঙ্গে প্রতিবেশী জান্নাত আরার কথা কাটাকাটি ও ঝগড়া হয়। পরে রাত ৯টার দিকে মো. হোসেন, রুবেল, জামির, মজি উল্লাহ, আবদুল মালেকসহ জান্নাতের পক্ষের আরও ৭-৮ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী কাজলীর স্বামী নুর আলমকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে নূর আলমকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এরপর গুরুতর অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে শুক্রবার সকালে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পানি নিয়ে সংঘর্ষে যুবকের মৃত্যু

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

টেকনাফ চাকমারকুল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে খাবার পানি নেয়া কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে দু’পক্ষের দ্বন্দ্বের ঘটনা ঘটেছে। পরে এক পক্ষের হামলায় রোহিঙ্গা যুবক নুর আলমের (২৫) মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় চাকমারকুলের আই ব্লকের বাসিন্দা মো. হোসেন, রুবেল, জামির, মজি উল্লাহ ও আবদুল মালেককে গ্রেফতার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন।

কক্সবাজার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এবিপিএন)-১৬-এর কমান্ডিং অফিসার মো. হেমায়েতুল ইসলাম জানান, পানি নেয়া কেন্দ্র করে চাকমারকুলের ২১ নম্বর ক্যাম্পের আই ব্লকে রোহিঙ্গা শরণার্থী কাজলীর সঙ্গে প্রতিবেশী জান্নাত আরার কথা কাটাকাটি ও ঝগড়া হয়। পরে রাত ৯টার দিকে মো. হোসেন, রুবেল, জামির, মজি উল্লাহ, আবদুল মালেকসহ জান্নাতের পক্ষের আরও ৭-৮ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী কাজলীর স্বামী নুর আলমকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে নূর আলমকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এরপর গুরুতর অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে শুক্রবার সকালে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।