ময়মনসিংহ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে ফের আগুন
jugantor
ময়মনসিংহ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে ফের আগুন

  ময়মনসিংহ ব্যুরো  

১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের কেওয়াটখালীতে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের (পিজিসিবি) উপকেন্দ্রে ২ দিনের মাথায় আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে উপকেন্দ্রের ট্রান্সফরমার ব্রেকারে প্রথমে আগুন লাগে। পরে তা নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। এতে কক্ষের সবকিছু পুড়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডের পর থেকে ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকলেও পর্যায়ক্রমে তিন জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। শুধু ময়মনসিংহ জেলা সকাল থেকে অন্ধকারে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ময়মনসিংহ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রদানে ত্বরিত কাজ চলছে। তবে কখন স্বাভাবিক হবে, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

স্থানীয়রা জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়লে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়।

ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আবুল হোসেন জানান, সকালে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আধা ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তিনি জানান, ১৩২-৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রের একটি সার্কিট ব্রেকারে আগুন লাগার পর নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। তবে আগুন মঙ্গলবারের মতো ভয়াবহ রূপ নেয়ার আগেই নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা সম্ভব হয়।

ময়মনসিংহ উপকেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, শর্ট-সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। মঙ্গলবার শর্ট-সার্কিট থেকে আগুন লেগে এ উপকেন্দ্রের একটি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ট্রান্সফরমারসহ সরবরাহ লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এরপর থেকে উপকেন্দ্রে সংস্কার কাজ চলছিল। বৃহস্পতিবার আবারও আগুন লাগার ঘটনায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। কখন ময়মনসিংহ জেলায় বিদ্যুৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে তা বলা যাচ্ছে না। দুপুরেই শেরপুর, জামালপুর ও নেত্রকোনায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও ময়মনসিংহ জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। তিনি জানান, পুড়ে যাওয়া সার্কিট ব্রেকার বদল করে নতুন সার্কিট ব্রেকার বসানোর কাজ চলছে। সেই কাজ শেষ হলে ময়মনসিংহ জেলায় আবার বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হবে।

পিজিসির সহকারী প্রকৌশলি একেএম তাজুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চার সদস্যর তদন্ত কমিটি কাজ করছে। এছাড়াও পিজিসি আলাদা কমিটি গঠন করেছে। আজকের ঘটনায় তদন্ত কমিটি হবে বলেও জানান তিনি।

ময়মনসিংহ বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে ফের আগুন

 ময়মনসিংহ ব্যুরো 
১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ময়মনসিংহের কেওয়াটখালীতে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের (পিজিসিবি) উপকেন্দ্রে ২ দিনের মাথায় আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে উপকেন্দ্রের ট্রান্সফরমার ব্রেকারে প্রথমে আগুন লাগে। পরে তা নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। এতে কক্ষের সবকিছু পুড়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডের পর থেকে ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকলেও পর্যায়ক্রমে তিন জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। শুধু ময়মনসিংহ জেলা সকাল থেকে অন্ধকারে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ময়মনসিংহ অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রদানে ত্বরিত কাজ চলছে। তবে কখন স্বাভাবিক হবে, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

স্থানীয়রা জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়লে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়।

ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আবুল হোসেন জানান, সকালে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আধা ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তিনি জানান, ১৩২-৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্রের একটি সার্কিট ব্রেকারে আগুন লাগার পর নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ছড়িয়ে পড়ে। তবে আগুন মঙ্গলবারের মতো ভয়াবহ রূপ নেয়ার আগেই নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা সম্ভব হয়।

ময়মনসিংহ উপকেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, শর্ট-সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। মঙ্গলবার শর্ট-সার্কিট থেকে আগুন লেগে এ উপকেন্দ্রের একটি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ট্রান্সফরমারসহ সরবরাহ লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এরপর থেকে উপকেন্দ্রে সংস্কার কাজ চলছিল। বৃহস্পতিবার আবারও আগুন লাগার ঘটনায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। কখন ময়মনসিংহ জেলায় বিদ্যুৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে তা বলা যাচ্ছে না। দুপুরেই শেরপুর, জামালপুর ও নেত্রকোনায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও ময়মনসিংহ জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। তিনি জানান, পুড়ে যাওয়া সার্কিট ব্রেকার বদল করে নতুন সার্কিট ব্রেকার বসানোর কাজ চলছে। সেই কাজ শেষ হলে ময়মনসিংহ জেলায় আবার বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হবে।

পিজিসির সহকারী প্রকৌশলি একেএম তাজুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চার সদস্যর তদন্ত কমিটি কাজ করছে। এছাড়াও পিজিসি আলাদা কমিটি গঠন করেছে। আজকের ঘটনায় তদন্ত কমিটি হবে বলেও জানান তিনি।