প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক রোহিঙ্গা নেতার ছেলে আলম
jugantor
প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক রোহিঙ্গা নেতার ছেলে আলম

  উখিয়া প্রতিনিধি  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নেতা কাশিম রাজার ছেলে শাহ আলম প্রকাশ রাজা শাহ আলম। তাকে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়কের দায়িত্ব দিয়েছে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ।

এ নিয়ে জেলাব্যাপী তোলপাড় চলছে। উখিয়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিক কারণে ২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন। বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা আশ্রিত হিসেবে থাকবে। এখন তারা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মতো রাজনৈতিক দলের বিষয় নিয়ে নাক গলাতে শুরু করেছে ক্যাম্পে। ৯ সেপ্টেম্বর রাজা শাহ আলম চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও আরও ৬ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৩৩ সদস্যের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ। সেদিন সন্ধ্যা ৭টায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অনুমোদিত তালিকা শাহ আলম চৌধুরী রাজার হাতে হস্তান্তর করেন জেলা সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

উল্লেখ্য, ১৯৫৬ সালে মিয়ানমারের তৎকালীন সরকারের চাপের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন আবুল কাশেম ওরফে কাশেম রাজা। উখিয়ার ইনানী পাহাড়ি এলাকায় আশ্রয় নেন তিনি। কাশিম রাজার ৩ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে প্রথম শাহ আলম চৌধুরী ওরফে রাজা শাহ আলম। মিয়ানমারের গুপ্তচররা ১৯৬৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ইনানী পাহাড়ি এলাকায় কাশেম রাজাকে হত্যা করে। রাজা শাহ আলম ২০০৮ সালে কক্সবাজারের জেলা আওয়ামী লীগে জড়িত হন।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ সূত্রমতে, ৯ সেপ্টেম্বর উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে আহ্বায়ক করা হয় জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি রাজা শাহ আলমকে। স্থানীয় সূত্রমতে, এ ঘটনায় উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পজুড়ে শুকরিয়া মোনাজাতের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে চরম অসন্তোষ চলছে আওয়ামী রাজনীতিতে। এমনকি রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকার বাসিন্দারাও মোনাজাতের ভাষা শুনে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। রাজা শাহ আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া মোনাজাতের ভিডিওটি আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্র। মূলত আমি বাংলাদেশি। বাংলাদেশে আমার জন্ম। যারা ষড়যন্ত্রে শুরু করেছে তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা করা হবে।

প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক রোহিঙ্গা নেতার ছেলে আলম

 উখিয়া প্রতিনিধি 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নেতা কাশিম রাজার ছেলে শাহ আলম প্রকাশ রাজা শাহ আলম। তাকে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়কের দায়িত্ব দিয়েছে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ।

এ নিয়ে জেলাব্যাপী তোলপাড় চলছে। উখিয়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিক কারণে ২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন। বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা আশ্রিত হিসেবে থাকবে। এখন তারা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মতো রাজনৈতিক দলের বিষয় নিয়ে নাক গলাতে শুরু করেছে ক্যাম্পে। ৯ সেপ্টেম্বর রাজা শাহ আলম চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও আরও ৬ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৩৩ সদস্যের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ। সেদিন সন্ধ্যা ৭টায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির অনুমোদিত তালিকা শাহ আলম চৌধুরী রাজার হাতে হস্তান্তর করেন জেলা সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

উল্লেখ্য, ১৯৫৬ সালে মিয়ানমারের তৎকালীন সরকারের চাপের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন আবুল কাশেম ওরফে কাশেম রাজা। উখিয়ার ইনানী পাহাড়ি এলাকায় আশ্রয় নেন তিনি। কাশিম রাজার ৩ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে প্রথম শাহ আলম চৌধুরী ওরফে রাজা শাহ আলম। মিয়ানমারের গুপ্তচররা ১৯৬৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ইনানী পাহাড়ি এলাকায় কাশেম রাজাকে হত্যা করে। রাজা শাহ আলম ২০০৮ সালে কক্সবাজারের জেলা আওয়ামী লীগে জড়িত হন।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ সূত্রমতে, ৯ সেপ্টেম্বর উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে আহ্বায়ক করা হয় জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি রাজা শাহ আলমকে। স্থানীয় সূত্রমতে, এ ঘটনায় উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পজুড়ে শুকরিয়া মোনাজাতের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে চরম অসন্তোষ চলছে আওয়ামী রাজনীতিতে। এমনকি রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকার বাসিন্দারাও মোনাজাতের ভাষা শুনে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। রাজা শাহ আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া মোনাজাতের ভিডিওটি আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্র। মূলত আমি বাংলাদেশি। বাংলাদেশে আমার জন্ম। যারা ষড়যন্ত্রে শুরু করেছে তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা করা হবে।