গুরুদাসপুরে আ’লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮
jugantor
গুরুদাসপুরে আ’লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮

  গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নাটোরের গুরুদাসপুরে ইউপি নির্বাচনে ভিন্ন প্রার্থীর সমর্থনে কাজ করা নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৮ জন আহত হয়েছেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। বুধবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার চাপিলা বাজারে এ সংঘর্ষ ঘটে।

জানা গেছে, চাপিলা ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা ইয়াকুব আলী লবির পক্ষে কাজ করছেন বাকিবেগপুর গ্রামের সাদেকুর রহমান। এতে বর্তমান চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন ভূট্টুর সমর্থকরা তার ওপর ক্ষিপ্ত হন। বুধবার রাতে ভূট্টু চেয়ারম্যানের ছোট ভাই আয়নাল হকের নেতৃত্বে ১০-১২ জন যুবক চাপিলা বাজারে সাদেকুরের ওপর হামলা করেন। তার স্বজনরা এগিয়ে এলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে রাশিদুল ইসলাম ও আতিকুর রহমান বড়াইগ্রাম হাসপাতালে এবং শাহজাহান, রাসেল, এনামুল, ফিরোজ ও আয়নাল গুরুদাসপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে সাদেকুর রহমানের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ ব্যাপারে গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাহারুল ইসলাম জানান, চেয়ারম্যানের পক্ষের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গুরুদাসপুরে আ’লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৮

 গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নাটোরের গুরুদাসপুরে ইউপি নির্বাচনে ভিন্ন প্রার্থীর সমর্থনে কাজ করা নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৮ জন আহত হয়েছেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। বুধবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার চাপিলা বাজারে এ সংঘর্ষ ঘটে।

জানা গেছে, চাপিলা ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা ইয়াকুব আলী লবির পক্ষে কাজ করছেন বাকিবেগপুর গ্রামের সাদেকুর রহমান। এতে বর্তমান চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন ভূট্টুর সমর্থকরা তার ওপর ক্ষিপ্ত হন। বুধবার রাতে ভূট্টু চেয়ারম্যানের ছোট ভাই আয়নাল হকের নেতৃত্বে ১০-১২ জন যুবক চাপিলা বাজারে সাদেকুরের ওপর হামলা করেন। তার স্বজনরা এগিয়ে এলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে রাশিদুল ইসলাম ও আতিকুর রহমান বড়াইগ্রাম হাসপাতালে এবং শাহজাহান, রাসেল, এনামুল, ফিরোজ ও আয়নাল গুরুদাসপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে সাদেকুর রহমানের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ ব্যাপারে গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাহারুল ইসলাম জানান, চেয়ারম্যানের পক্ষের অভিযোগ পাওয়া গেছে।