মাদারীপুরে কলেজ শিক্ষার্থীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
মাদারীপুরে কলেজ শিক্ষার্থীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদারীপুর সরকারি কলেজের মাস্টার্স পরীক্ষার্থী রিমন সরদারকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা মামলায় আকলিমা বেগম নামে এক নারীকে গ্রেফতার করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ। শনিবার সকালে শহরের লেকেরপাড় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

রিমন সদর উপজেলার ব্রাহ্মণদী গ্রামের গোলাম সরদারের ছেলে। এ হত্যার প্রতিবাদে শনিবার সকালে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। পুলিশ জানায়, ১৭ সেপ্টেম্বর শহরের লেকেরপাড়ে মোটরসাইকেলের হর্ন বাজানোকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডায় ওই এলাকার রাজীব খালাসী ও সজিব খালাসী দুই ভাই তাদের লোকজন নিয়ে রিমনকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। প্রথমে রিমনকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিমন শুক্রবার মারা যায়। শনিবার সকালে মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত হয়েছে।

রিমন হত্যার প্রতিবাদে শনিবার বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। প্রথমে রিমনের গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার ব্রাহ্মণদী থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা সদর হাসপাতালের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে পালন করা হয় মানববন্ধন। এদিকে এ ঘটনায় রিমনের বড় ভাই আনিছুর সরদার ছয়জনকে আসামি করে শুক্রবার রাতে মাদারীপুর সদর থানায় হত্যা মামলা করেন। আসামিরা হলেন রাজীব খালাসী, সজীব খালাসী, আকলিমা বেগম, তৃপ্ত, রাব্বি ফরাজী ও আসাম মাতুব্বর।

মাদারীপুর সদর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, রিমন হত্যার ঘটনায় এক নারীকে আমরা গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতার করতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মাদারীপুরে কলেজ শিক্ষার্থীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা

 টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদারীপুর সরকারি কলেজের মাস্টার্স পরীক্ষার্থী রিমন সরদারকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা মামলায় আকলিমা বেগম নামে এক নারীকে গ্রেফতার করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ। শনিবার সকালে শহরের লেকেরপাড় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

রিমন সদর উপজেলার ব্রাহ্মণদী গ্রামের গোলাম সরদারের ছেলে। এ হত্যার প্রতিবাদে শনিবার সকালে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। পুলিশ জানায়, ১৭ সেপ্টেম্বর শহরের লেকেরপাড়ে মোটরসাইকেলের হর্ন বাজানোকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডায় ওই এলাকার রাজীব খালাসী ও সজিব খালাসী দুই ভাই তাদের লোকজন নিয়ে রিমনকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। প্রথমে রিমনকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিমন শুক্রবার মারা যায়। শনিবার সকালে মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত হয়েছে।

রিমন হত্যার প্রতিবাদে শনিবার বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। প্রথমে রিমনের গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার ব্রাহ্মণদী থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা সদর হাসপাতালের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে পালন করা হয় মানববন্ধন। এদিকে এ ঘটনায় রিমনের বড় ভাই আনিছুর সরদার ছয়জনকে আসামি করে শুক্রবার রাতে মাদারীপুর সদর থানায় হত্যা মামলা করেন। আসামিরা হলেন রাজীব খালাসী, সজীব খালাসী, আকলিমা বেগম, তৃপ্ত, রাব্বি ফরাজী ও আসাম মাতুব্বর।

মাদারীপুর সদর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, রিমন হত্যার ঘটনায় এক নারীকে আমরা গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতার করতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।